হরিপুরে ক্রিকেট খেলা নিয়ে জুয়া।

হরিপুরে ক্রিকেট খেলা নিয়ে জুয়া।

 

জে ইতি, হরিপুর, ঠাকুরগাঁও ঃ
দেশের অন্যতম জনপ্রিয় খেলা ক্রিকেট। ক্রিকেটই এখন দেশের মানুষের কাছে ধ্যান- জ্ঞান । বাংলাদেশ খেলার দিন দেশে ১৬-১৭ কোটি মানুষ তাকিয়ে থাকে টিভিস্ক্রিনের দিকে, অনেকে ্আবার সময় পেলে লার-সবুজ জার্সি চলে যান স্টেডিয়ামে।
আর দেশের বাহিরে খেলা হলে ছোখ রাখেন টিভির পর্দায় কিংবা হেড ফোনে রেডিওতে শোনেন ধারা বিবরণী। বাংলাদেশের খেলার দিন শত কর্মব্যস্তার মধ্যেও খরব রাখেন দেশের মানুষ কেমন খেলছে বাংলাদেশের যুবকরা। মাঝেমধ্যে পথচাড়ি বা গাড়ি চালক গাড়ি থামিয়ে চা-বিষ্কুটের দোকানে উঁকি মেরে দেখেন নিজ দেশের খেলোয়াড়দের পারফরমেন্স জানতে। ্আর এক ধরেনর অসাধু লোক জনপ্রিয় এই খেলা গড়ে তুলেছেন জুয়া হিসাবে। অসাধু এই চক্রটি মানুষের আবেগ-ভালোবাসার খেলাটিকে কেন্দ্র করে প্রতিনিয়তই হাজার হাজার টাকার ফলাফল বাজি,ওভার বাজি,রানবাজিসহ বিভিন্ন ধরনের জুয়া খেলছেন। এই জুয়াবাজির ফাঁদে পড়ে অনেকেই হয়ে যাচ্ছেন নিঃস্ব।
টাকার লেনদেনে নিয়ে অনেকে সময়ই ঘটে নানা ধরনের বিপত্তির ঘটনা।
জুয়াবাজি চলে ্উপজেলার বিভিন্ন চা-বিষ্কুটের দোকানে অথাৎ বখাটেদের আড্ডা দোকানগুলোতে। জুয়ার নেশায় প্রায় প্রতিটি ম্যাচ এমনকি ১ম শ্রেণির ঘরোয়া লীগেও।
জুয়া সূত্রে জানা যায়,নগদ বাজির পাশাপাশি চলে মাসব্যাপী বাকি বাজির পসরা। এটাকে অনেকে মাসিক ইনকামের অংশ হিসাবে দেখেন। তবে অনেক সময় কেউ কেউ নিঃস্ব হয়ে যান বাজির টাকা পরিশোধ করতে। মাসিক বাজির ক্ষেত্রে বাজির দলিল দস্তাবেজ সংরক্ষণ করা হয় মোবাইল ম্যাসেজের মাধ্যমে। তবে পরিবারের লোকজনের কাছে ধরা পড়ান ভয়ে এক্ষেত্রে বেশ সর্তক জুয়াড়িরা। বেশিভাগ ক্ষেত্রেই তারা দুটি মোবাইল ব্যবহার করেন। বাজির দরটা বেশি হলে মোবাইলে রেকর্ডিংটাও করে রাখা হয়।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক কয়েক জন জুয়াড়ি বলেন,মাসিক বাজিটা করা হয় দীর্ঘদিনের পার্টনারের সঙ্গে । তবে এক্ষেত্রে বিশ্বাসযোগ্যতা থাকা জরুরী।
মাসের নির্দিষ্ট একটা তারিখ দেয়া হয়ে থাকে ওইদিনই টাকা পরিশোধ করতে হয়। লেনদেনের পরিমান বেশি হলে একটা নির্দিষ্ট অংশ অবশ্যই পরিশোধ করতে হয় বলে জানান তারা।
সচেতন বৃদ্ধির ল্যক্ষে মাঠ প্রযাইয়ে কাজ করছেন বলে জানান উপজেলা পুলিশিং কমিটি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মতামত লিখুন
আপনার নামটি লিখুন