রায়পুরে মোবাইলে পর্নোগ্রাফি ছবির ভয়াবহ বিস্তার

রায়পুরে মোবাইলে পর্নোগ্রাফি ছবির ভয়াবহ বিস্তার

দেলোয়ার হোসেন মৃধ্যা ॥
লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলায় ভিডিও মোবাইল ফোনে পর্ণোগ্রাফি ছবি প্রদর্শনে বিপথগামী হয়ে পড়েছে স্কুল কলেজের ছেলে-মেয়েরা। এতে অসংখ্য কিশোর কিশোরীর ভবিষ্যৎ অন্ধকারে ঢাকা পড়ছে। তথ্য প্রযুক্তির দিক থেকে কম্পিউটার ল্যাপটপ ও ইন্টারনেটের মাধ্যমে গোটা বিশ্বটা যেন মানুষের হাতের মুঠোয়। দেশের প্রতিটি জেলা-উপজেলার ন্যায় রায়পুরে ঘরে ঘরে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার শুরু করা হয়েছে। জেলার গ্রাম-গঞ্জে হাটেবাজারে কম্পিউটার দোকানে ইন্টারনেট ব্যবহার করা হচ্ছে। এছাড়া অনেকেই ভিডিও মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যবহার করছে। ভিডিও মোবাইল ফোনে পর্ণোগ্রাফি ছবি দেখে সামাজিক অবস্থা ভেঙে পড়ছে। বিপথগামী হয়ে পড়ছে অপ্রাপ্ত বয়সের ছাত্র/ছাত্রীরা। মোবাইল এবং কম্পিউটারের দোকানে গিয়ে বখাটে ছেলে বা ছাত্র অশ্লীল ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে কচি মেয়েদের দেখিয়ে তাদের প্রেমের ফাঁদে ফেলার চেষ্টা করে। অনেকেই এই ফাঁদে আটকা পড়ে। কোমলমতি মন প্রেমের বিরহ বেদনায় নিজের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পারিবারিক চাপে কেউ কেউ আত্মহত্যা করে। আবার অধিকাংশ ছেলে-মেয়েদের অপ্রাপ্ত বয়সে বিয়ের পিঁড়িতে বসতে হচ্ছে। সংসার জীবন বুঝে ওঠার আগে প্রেমের প্রণোদনায় বিয়ের সাধ গ্রহণ করলেও অতি অল্প সময়ের মধ্যে এদের দাম্পত্য জীবনে বিচ্ছেদ ঘটে। আবার কেউ কেউ আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। বিশেষ করে হাইস্কুলে ছাত্র-ছাত্রীদের জীবনে এই দুর্ঘটনার শিকার হয় বেশি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েক কম্পিউটার ব্যবসায়ী জানান, ইন্টারনেট থেকে দেশী বিদেশী এসব পর্ণোগ্রাফি ছবি ডাউনলোড দিয়ে কম্পিউটারে ধারণ করে রাখে। ধারন করা অশ্লীল সিডি মেমোরী কার্ডের মাধ্যমে সবর্ত্র ছড়িয়ে দিচ্ছে কিছু অসাধু মোবাইল ও কম্পিউটার ব্যবসায়ী। তারা গ্রাহকদের চাহিদার ভিত্তিতে ভিডিও মোবাইলে লোড দেয়া হয়। উপজেলার প্রায় শতভাগ ভিডিও মোবাইল এবং কম্পিউটার দোকানে এই পর্ণোগ্রাফি ভিডিও চিত্র রয়েছে। যুব সম্প্রদায় থেকে শুরু করে আবালবৃদ্ধবণিতা এই ভিডিও চিত্র উপভোগ করছে। এরা বিনোদন হিসাবে দেখলেও বিপদগামী হয়ে পড়ছে স্কুল কলেজের ছাত্র/ছাত্রীরা। লক্ষ্মীপুর সদরসহ আশপাশের উপজেলার কিছু অসাধু প্রেমিক প্রেমের ফাঁদে ফেলে অশ¬ীল চিত্র মোবাইলে ধারণ করা এবং পরে ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার অপরাধে সম্প্রতি জেলার রায়পুর থানায় ১টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতি আরও বেপরোয়া হয়ে পড়ায় এলাকাবাসী উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে। এ ব্যাপরে শ্রীগ্রই মোবাইল কোর্ট পরিচালনার মাধ্যমে পর্নোগ্রাফি ভিডিও ছবির ভয়াভহ বিস্তার রোধ করা সম্ভব বলে জানান উপজেলার সচেতন মহল।
এ ব্যাপরে মোবাইল ফোনে কথা হলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানান, পর্ণোগ্রাফি ভিডিও ছবির ভয়াভহ বিস্তার রোধে তদন্ত সাপেক্ষে অভিযান চালিয়ে আইনগত ব্যাবস্থা নেওয়া হবে। তিনি আরও জানান, সচেতন মহলের উচিত হবে অপরাধকারীদের চিহ্নিত করে প্রশাসনের কাছে জানিয়ে দেওয়া।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মতামত লিখুন
আপনার নামটি লিখুন