রাজনীতি তাহলে চিকিৎসা নিয়েও?

নিউজ ডেস্ক: র্নীতির মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়ে বিএনপি সভানেত্রী বেগম খালেদা জিয়া প্রায় চার মাসের অধিক সময় ধরে বন্দি আছেন জেলে। দলে তার দীর্ঘদিনের অনুপস্থিতির কারণে সৃষ্টি হয়েছে নেতৃত্বের শূন্যতা যা সাম্প্রতিক সময়ে এক ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে ।

সিনিয়র নেতাদের দায়িত্বহীনতা এবং পরস্পর বিরোধী বক্তব্য ও দিকনির্দেশনাহীনতায়একদিকে যেমন তৃণমূল নেতা-কর্মীদের মনে বেড়েছে উৎকণ্ঠা তেমনি দলীয় ঐক্য এবং সংহতিতে ধরতে শুরু করেছে ফাটল । এমন অবস্থায় খালেদা জিয়ার অসুস্থতাকে ইস্যু করে দলীয় স্বার্থ হাসিলে নেমেছে বিএনপি ।

খালেদা জিয়াকে অসুস্থ দাবি করে বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হয় ইউনাইটেড হাসপাতালে নেত্রীর চিকিৎসার ব্যবস্থা যেন সরকার গ্রহণ করে । বিশ্বাসযোগ্য সূত্র থেকে জানা গিয়েছে যে, এই হাসপাতালের উচ্চপদে রয়েছে ‘ড্যাব’ এর সক্রিয় কিছু চিকিৎসক যারা নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে টপকে খালেদা জিয়ার কাছে পৌঁছে দিতে পারবেন মোবাইল ফোন।

পরিকল্পনা অনুযায়ী খালেদা জিয়া এ সময়ের মধ্যে দেশে-বিদেশে অবস্থিত দলের বিভিন্ন নেতা-কর্মী এবং সহযোগীদের সাথে যোগাযোগ করবেন বলে জানা গিয়েছে । এছাড়াও হাসপাতালে ভর্তি থাকাকালীন সময়ে দলের নেতারা খুব সহজেই পারবেন নেত্রীর সাথে দেখা করতে ।
ফলে অল্প সময়ের জন্য হলেও দলের ভবিষৎ কার্যক্রম নিয়ে গুরুত্ত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন খালেদা জিয়া । এ কারণেই সরকারের তরফ থেকে খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজের নাম প্রস্তাব করা হলেও তার পরিবার এবং দলের নেতারা মরিয়া হয়ে আছেন ইউনাইটেড হাসপাতলে নেত্রীকে নিয়ে যাওয়ার জন্য।

Leave a Reply