বরিশাল-ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতি দ্বন্ধের ২য় দিন রায়াপুর সড়কের উপর ষ্ট্যান্ড যানজট-যাত্রী দূর্ভোগ

বরিশাল-ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতি দ্বন্ধের ২য় দিন রায়াপুর সড়কের উপর ষ্ট্যান্ড যানজট-যাত্রী দূর্ভোগ
 
খাইরুল ইসলাম, ঝালকাঠি প্রতিনিধি: ঝালকাঠি-বরিশাল-খুলনার ৭টি রুটে বরিশাল মালিক সমিতির বাস চলাচল বন্ধ ঘোষনার ২য় দিনেও কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছে ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতি। দ্বিতীয় দিনের মত গতকাল বৃস্পতিবারও এই কর্মসূচীর কারনে চড়ম দূর্ভোগে পরেছে ঐ সব রুটে চলাচল কারী যাত্রীরা। অথচ এহেন বিরোধী ও দ্বন্দ অবসানে সরকার বা প্রশাসানের কোন ধরনে তৎপরতা লক্ষ করা যাচ্ছেনা। প্রকৃত সত্য যাচাই করে করে যেটা ন্যায় সংগত বা আইনসংগত
 
ঝালকাঠি-বরিশাল সড়কের রায়াপুর নামক স্থান থেকে ঝালকাঠি মালিক সমিতির বাসে দূর্ভোগ লাঘবে এসব রুটে যাত্রীদের নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এর পরেও বরিশাল থেকে ঝালকাঠির রায়াপুর পর্যন্ত আসতে যাত্রীদের দূর্ভোগে পরতে হচ্ছে। বিশেষ করে নারী, শিশু এবং বৃদ্ধ যাত্রীরা চরম দূর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।
 
বন্ধ ৭টি রুট হচ্ছে বরিশাল থেকে ঝালকাঠি, খুলনা, পিরোজপুর, মঠবারিয়া, পাথরঘাটা, ভান্ডারিয়া ও নলছিটি। কুয়াকাটা, বরগুনা ও পটুয়াখালি থেকে আসা যাত্রী, প্রকৌশলী খায়রুল ইসলাম, গৃহীনি রমা রানী ও ব্যবসায়ী সিরাজুল ইসলাম জানায় বরিশালে নেমে খুলনা রুটে যেতে ঝালকাঠি যাবার কোন বাস পাচ্ছিনা। কারন বরিশাল থেকে এ রুটের কোন বাস ছাড়ছে না। তাই আমাদেরকে টেম্পু, আটো রিকাসাসহ বিভিন্ন মাধ্যমে অতিরিক্ত ভাড়া দেয়ার পাশাপাশি চরম দূর্ভোগ ও হয়রানীতে পরতে হচ্ছে। কত দিন এ অবস্থা চলবে তা প্রশাসনই জানে।
 
এ প্রসঙ্গে বাস মিনবাস মালিক সমিতির যুগ্ম সাধারন সম্পাদক নাসির উদ্দিন খান ও ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতির সড়ক সম্পাদক মো. মহিউদ্দিন বলেন, আমরাতো সমাধানের জন্য বরিশাল বিভাগীয় কমিশনারের ডাকে সাড়া দেিয় গত ২ জানুয়ারি তার কার্যালয়ে পূর্ব নির্ধারিত বৈঠকে উপস্থিত হয়ে ছিলাম। কিন্তু বরিশাল মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ আসেনি এবং পটুয়াখালি ও বরগুনা মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দদের আসতে দেয়নি বলে জানতে পেরেছি। তাই বাধ্য হয়ে দ্বিতীয়বারের ন্যায় এ অনির্দিষ্ট কর্মসুচির ডাক দেয়া হলো। আমাদের দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত এ কর্মসূচি চলবে।
 
উল্লেখ্য ঝালকাঠি মালিক সমিতির দাবি বরিশাল-বাখেরগঞ্জ, বরিশাল-নিয়ামতি, বরিশাল-কাঠালতলি, বরিশাল-পটুয়াখালি, বরিশাল-বাউফল, বরিশাল-কুয়াকাটা ও বরিশাল-বরগুনার ৭ রুটে ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতির বাস চলতে দিতে হবে। কারন ঝালকাঠির ৮ কিলোমিটার সড়ক ব্যবহার করে বরিশাল মালিক সমিতির রুটের বাস চলাচল করলেও ঝালকাঠি মালিক সমিতির সাথে সম্মন্বয় না করে ঝালকাঠির বাস চলতে দেয়া হচ্ছেনা।

Leave a Reply