ঝালকাঠিতে সরকারী খাল উদ্ধারে ডিসির উদ্দ্যেগ ফুটপাত মুক্ত করতে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম

ঝালকাঠিতে সরকারী খাল উদ্ধারে ডিসির উদ্দ্যেগ ফুটপাত মুক্ত করতে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম

ঝালকাঠি প্রতিনিধি: ঝালকাঠি শহরকে এক সময় ব্যবসায়িক নৌ-বন্দর হিসেবে দ্বিতীয় কলকাতা বলা হত। শহরের পয়োনিষ্কাশনের জন্য ছড়িয়ে ছিটিয়ে ছিল ২২ টি খাল। কালের পরিক্রমায় এবং অবৈধ দখলদারদের দখল-বাজির কারণে রাস্তার ফুটপাত এবং খাল ছিল বেদখল। সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী অবৈধ দখল উচ্ছেদ, খাল খনন ও পৌর এলাকার রাস্তার ফুটপাত দখল মুক্ত করার প্রক্রিয়া জেলা প্রশাসক ও পৌর মেয়রের যৌথ উদ্দ্যোগে শুরু হয়েছে।

জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. জাকির হোসেন, এনডিসি ও পৌর-মেয়র আলহাজ্ব মো. লিয়াকত আলী তালুকদার উপস্থিত থেকে উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করেন।

শুক্রবার সকাল ৯টায় উপজেলার সামনে দিয়ে পৌর এলাকার খাল দখল মুক্ত ও রাস্তার পাশের ফুটপাত উচ্ছেদ কার্যক্রম শুরু করেছে জেলা প্রশাসন।

এর পূর্বে ঝালকাঠি নাগরিক ফোরামের পক্ষে অধ্যাপক এসএম শাহজাহান জেলা প্রশাসক বরাবরে সরকারী খাল উদ্ধার করে খননের আবেদন জানান।

জেলা প্রশাসন ও পৌরসভার কর্মকর্তারা এক যোগে শহরের রেকর্ডিয় খালে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অবৈধ দখলদারদের মুক্ত করার জন্য উপজেলা পরিষদের সামনে থেকে শুরু করে ডাক্তারপট্টি, মেছুয়া বাজার, কাপুড়িয়াপট্টি, তামাকপট্টি, হালিমা বোডিংয়ের পিছনে বাশঁ পট্টি, কাঠপট্টি পানির ট্যংকি হয়ে বাকলাই ফাড়ি পায়ে হেঁটে পরিদর্শন করেন।

শহরের বড় বাজার, পান বাজার, কালীবাড়ি রোডের ফুটপাত দখল মুক্ত করতে হুশিয়ারী দিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক আগামী ২৪ঘন্টার মধ্যে শহরের সকল ফুটপাত থেকে মালামাল সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন ও আগামী কাল থেকে ইদ পর্যন্ত নিয়মিত সকাল ও বিকাল দুইবার মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে জেল জরিমানা করা হবে বলে জানান।

Leave a Reply