রোহিঙ্গাদের পরিচয় যাচাই-বাছাই করতে আরও সময় লাগবে : মিয়ানমারের মন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের পরিচয় যাচাই-বাছাই করতে আরও সময় লাগবে : মিয়ানমারের মন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রোহিঙ্গাদের পরিচয় যাচাই-বাছাই করতে আরও সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন মিয়ানমারের সমাজকল্যাণ, ত্রাণ ও পুনর্বাসনমন্ত্রী উইন মিয়াত আয়ে। বাংলাদেশ থেকে ফেরত নেয়ার আগে সময় ক্ষেপণের অভিযোগ করছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা। এ অবস্থায় শুক্রবার রেডিও ফ্রি এশিয়াকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন তিনি। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে মিয়ানমারের নেতৃত্বে থাকা উইন আয়ে আগামী ১১ এপ্রিল ঢাকা আসছেন। তিনি কক্সবাজারে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের ক্যাম্পে যাবেন বলে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। প্রায় এক মিলিয়ন রোহিঙ্গা মিয়ানমার থেকে বাংলাদশে আসার পর আন্তর্জাতিক সমালোচনার মুখে মিয়ানমার বাসিন্দাদের ফেরত নিতে রাজি হয়। চার মাস আগে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে একটি সম্মতিপত্র সই হলেও তার অগ্রগতি নেই। ওই সম্মতিপত্রের ভিত্তিতে দু’দেশ ১৯ ডিসেম্বর যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন করে। রোহিঙ্গাদের পরিচয় যাচাইয়ের জন্য একটি ফর্মও চূড়ান্ত করা হয় গ্রুপের বৈঠকে। সাক্ষাৎকারে উইন আয়ে বলেন, শরণার্থীদের পূরণ করা ফর্ম চুক্তির আলোকে না হওয়ায় জটিলতা তৈরি হয়েছে। ‘যদি প্রক্রিয়াটি চুক্তি অনুসরণে চলে, ফর্মটি চুক্তির আলোকে পূরণ হয়, তবে তো দেরি হওয়ার কথা নয়। কিন্তু এটা সেই পথে হচ্ছে না, যা আমরা প্রত্যাশা করছি। যদি শরণার্থীরা চুক্তি অনুযায়ী ফর্মটি পূরণ করে, তবে প্রক্রিয়াটি আরও দ্রুততর হতে পারে। গত ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশ যে ৮ হাজার ৩২ জনের তালিকা দিয়েছিল, তার মধ্যে ৫০০ মুসলিম রোহিঙ্গার পরিচয় যাচাইয়ের কথা জানান মিয়ানমারের পররাষ্ট্র সচিব মিন্ত থু। এছাড়া আরও ৪০০ হিন্দু শরণার্থীকে যাচাই করে নিশ্চিত করেছে তারা।

Leave a Reply