আট মাসের মধ্যে বগুড়ায় রেকর্ড শনাক্ত

https://www.bdcurrentnews24.com/wp-content/uploads/2022/07/ad-1.jpg

ডেক্স রিপোর্ট:

গেলো আট মাসের রেকর্ড ভেঙ্গে বুধবার বগুড়ায় কোভিড টেস্টে ৪০ শতাংশই পজেটিভ হয়েছে। একদিন আগে যে হার ছিলো ২১ শতাংশ। দ্বিগুন হারে সংক্রমণ বাড়ায় এখনই সচেতন না হলে বড় বিপর্যয়ের আশঙ্কা করছেন চিকিৎসকরা।

এদিকে, স্কুল-কলেজ গুলোতে সরকারি নির্দেশনা মানা হলেও বেশিরভাগ কোচিং-টিউশন সেন্টারে নেই কোন স্বাস্থ্যবিধির বালাই! এ অবস্থায় করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় দীর্ঘদিন ঘরবন্দি থেকে স্বাভাবিক জীবনে ফেরা শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা হয়ে উঠছেন উদ্বিগ্ন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আরো আগে সচেতন না হওয়ায় পরিস্থিতি হতে পারে আগের চেয়েও ভয়াবহ!

দিনের বেশিরভাগ সময় কোচিং এ অবস্থান করা হাজারো শিক্ষার্থীর মনে এখন এই শঙ্কা জমাট বাধতে শুরু করেছে। তবুও পিছিয়ে পরার ভয়ে করোনার ভয়াবহতাকে সাথে নিয়েই তাদের ছুটতে হচ্ছে প্রতিদিনের ভীড়ে। শিশু-কিশোর কিংবা তরুণ নানা বয়সী কয়েক লাখ শিক্ষার্থীর দিনে-রাতে সমাবেশ ঘটে শহরের জলেশ্বরিতলা, কালিতলা, সেউজগাড়িসহ বিভিন্ন পাড়ায়-মহল্লায়। কোচিং ও শিক্ষকদের প্রতিযোগিতার বলি এইসব শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিয়ে ভাবা হয় খুব কম প্রতিষ্ঠানেই।

অভিভাবকরা জানান, একদিকে করোনার নির্মমম ভয়াবহতা অন্যদিকে সন্তানের লেখাপড়া। এই দুই পরিস্থিতির মাঝে বাধ্য হয়েই বের হতে হয় তাদের। তবে, সংক্রমণের ঊর্দ্ধগতিতে আবারো ঘরবন্দি নয় স্বাস্থ্য বিধি মানায় জোর দিতে চান বগুড়ার বেশিরভাগ অভিভাবক।

বুধবার স্বাস্থ্য বিভাগ করোনার উচ্চঝুঁকিপূর্ণ জেলা হিসেবে ঘোষণা করার পর থেকে মাঠে নেমেছে বগুড়া জেলা প্রশাসন। নেয়া হচ্ছে কঠোর বিধিনিষেধের প্রস্তুতিও। তবে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্কুল-কলেজ খোলা রাখলেও কোচিং-টিউশন আপাতত বন্ধ রাখার পরামর্শ সিভিল সার্জন শফিউল আজমের।

বগুড়ায় গেলো দু’বছরে কয়েকদফা সংক্রমণ বাড়লেও বাড়েনি চিকিৎসার মান। করোনা চিকিৎসায় জেলার সবচেয়ে নির্ভযোগ্য সরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্র মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে এখনও স্থাপন করা হয়নি ডিজিটাল এক্সরে মেশিন।

অন্যদিকে, একেবারেই সচেতন নয় জনসাধারন। তাই, প্রতিরোধ আর সুরক্ষা ব্যবস্থায় সঠিক সময়ে সিদ্ধান্ত না নেয়ায় আবারও জেলার করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ হবার আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

https://www.bdcurrentnews24.com/wp-content/uploads/2022/07/ad-1.jpg