কচুয়ায় মসজিদ নির্মানে চাঁদা দাবী ।। চাঁদা না পেয়ে মুক্তিযুদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধা পরিবারের ওপর হামলা

0

স্টাফ রিপোর্টার :- চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলায় মসজিদ নির্মানের কাজ করতে গেলে মোটা অংকের চাঁদা দাবী করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। চাঁদা না পেয়ে

বীর মুক্তিযুদ্ধা আঃ করিম মিলিটারি  ও তার পরিবারে ওপর হামলা চালিয়ে তাদের গুরুতর আহত করেছে স্থানীয় চাঁদা বাজরা। দেশিয় অস্ত্র দিয়ে ওই এলাকার সোলেমান মিয়াজী, শামিম সহ আরো কয়েকজন  এ হামলা করেছে বলে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের অভিযোগ। 

২১ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার সকালে কচুয়া উপজেলার ৯ নং কড়াইয়া ইউনিয়নের নলুয়া গ্রামের মুন্সি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ হামলার ঘটনায় ২১ ফেব্রুয়ারি দুপুরে কচুয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা পরিবার। 

বীর মুক্তিযোদ্ধা আ: করিম মিলিটারির পরিবারের সদস্যরা জানান, প্রায় এক দেড় মাস পূর্বে তারা তাদের বাড়ির রাস্তার পশ্চিম পাশে তাদের নিজস্ব সম্পত্তিতে একটি মসজিদ নির্মান

করতে যান। তারা মসজিদের সিমেন্টের  পিলার দিয়ে মসজিদ নির্মান করার প্রস্ততিকালে একই এলাকার মো : বজলুর রশিদের ছেলে মো : শামিম হোসেন (৩৫), মৃত মো: ছেরাজুল হকের ছেলে মো : সোলেমান মিয়াজী(৪৫),মৃত ইসহাক মৌলভীর ছেলে মো : বজলুর রশিদ প্রকাশ মিলু(৬০), মো: বজলুর রশিদের ছেলে মো: মামুন হোসেন(৩০), মৃত ছেরাজুল হকের ছেলে মো: জহিরুল ইসলাম(৩৫). একত্রিত হয়ে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের কাছে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করেন।

 অন্যায় তাদেরকে কয়েক শতাংশ জমি দেয়ার কথা বলেন। তাদের দাবি মেনে না নিলে তারা সেখানে মসজিদ নির্মান করতে দিবেন না বলে বিভিন্ন হুমকি প্রদান করেন। তাদের অভিযোগ তার পর থেকে হামলাকারীরা তাদেরকে প্রায়ই মোবাইল ফোনে হামলা করে প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করেন। এ নিয়ে কচুয়া উপজেলা মুক্তিযুদ্ধা সংসদেও বিষয়টি মিমাংশা করার কথা। কিন্তু চাঁদা দাবীকারীরা সে মিমাংসায় না গিয়ে পূর্বের ঘটনার জের ধরে ঘটনার দিন সকালে মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের সাথে প্রথমে ঝগড়ায় লিপ্ত হন। 

ঝগড়ার এক পর্যায় উপরে উল্লেখ্যিতরা সহ অজ্ঞাত আরো বেশ ক,জন মিলে তাদের বাড়ি ঘরে হামলা ভাংচুর, মানসুরার কানে, গলার ১ ভরি স্বর্ণ নিয়ে যায়  এবং তাদের ওপর দেশিয় অস্ত্র দিয়ে অর্তকিত হামলা চালায়। গুরুতর মুক্তিযুদ্ধাসহ আহত ৫জন এখন কচুয়া উপজেলা সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

এ বিষয়ে মামলার প্রস্ততি চলছে বলে তারা জানিয়েছেন।