কিশোরগঞ্জের নিকলী’র ইউপি চেয়ারম্যান ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার

রুহুল আমিন,কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ  কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলার ১ নম্বর সিংপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হককে (৫৫) ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

বুধবার (৮ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ১১টায় ঢাকা উত্তরা ৯ নম্বর সেক্টর, ৭ নম্বর রোডের ২৮ নম্বর বাসা থেকে উত্তরা পশ্চিম থানার পুলিশের সহায়তায় নিকলী থানার পুলিশ আনোয়ারুল হককে গ্রেপ্তার করে। পরে বৃহস্পতিবার দুপুরে কিশোরগঞ্জ আদালতে পাঠানো হলে আদালত থাকে কারাগারে পাঠান।
চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হক উপজেলার সিংপুর ইউনিয়নের ভাটিবরাটিয়া গ্রামের মৃত আঃ আজিজের ছেলে।

থানা সূত্র ও মামলার বিবরণে জানা যায়, চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হক ইচ্ছাকৃত দীর্ঘ দিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে আক্রমণ করে মিথ্যা তথ্য প্রচার করে মানহানি ও ভিতি প্রর্দশন করে আচ্ছেন। এ ঘটনায় নিকলী সদর ইউনিয়নের ধুপাহাটি গ্রামের কারার শাহরিয়া আহম্মেদ তুলিপ বাদী হয়ে গত বুধবার রাতে ( ৮ জানুয়ারি) ইউপি চেয়ারম্যানসহ তিন জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত নামা আরো চারজনকে আসামি করে নিকলী থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ এর ২৫ ( ২৯), (৩১), (৩৫) ধারায় মামলা দায়ের করেন।

এ মামলার প্রধান আসামি ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হককে বুধবার রাতে ঢাকার উত্তরা থেকে গ্রেপ্তার করে কিশোরগঞ্জ আদালতে হাজির করেন। আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।

নিকলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামছুল আলম ছিদ্দিকী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পলাতক অন্য আসামিদেরকে গ্রেপ্তারের অভিযান চলছে

কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলার ১ নম্বর সিংপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হককে (৫৫) ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

বুধবার (৮ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ১১টায় ঢাকা উত্তরা ৯ নম্বর সেক্টর, ৭ নম্বর রোডের ২৮ নম্বর বাসা থেকে উত্তরা পশ্চিম থানার পুলিশের সহায়তায় নিকলী থানার পুলিশ আনোয়ারুল হককে গ্রেপ্তার করে। পরে বৃহস্পতিবার দুপুরে কিশোরগঞ্জ আদালতে পাঠানো হলে আদালত থাকে কারাগারে পাঠান।
চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হক উপজেলার সিংপুর ইউনিয়নের ভাটিবরাটিয়া গ্রামের মৃত আঃ আজিজের ছেলে।

থানা সূত্র ও মামলার বিবরণে জানা যায়, চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হক ইচ্ছাকৃত দীর্ঘ দিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে আক্রমণ করে মিথ্যা তথ্য প্রচার করে মানহানি ও ভিতি প্রর্দশন করে আচ্ছেন। এ ঘটনায় নিকলী সদর ইউনিয়নের ধুপাহাটি গ্রামের কারার শাহরিয়া আহম্মেদ তুলিপ বাদী হয়ে গত বুধবার রাতে ( ৮ জানুয়ারি) ইউপি চেয়ারম্যানসহ তিন জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত নামা আরো চারজনকে আসামি করে নিকলী থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ এর ২৫ ( ২৯), (৩১), (৩৫) ধারায় মামলা দায়ের করেন।

এ মামলার প্রধান আসামি ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হককে বুধবার রাতে ঢাকার উত্তরা থেকে গ্রেপ্তার করে কিশোরগঞ্জ আদালতে হাজির করেন। আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।

নিকলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামছুল আলম ছিদ্দিকী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পলাতক অন্য আসামিদেরকে গ্রেপ্তারের অভিযান চলছে

কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলার ১ নম্বর সিংপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হককে (৫৫) ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

বুধবার (৮ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ১১টায় ঢাকা উত্তরা ৯ নম্বর সেক্টর, ৭ নম্বর রোডের ২৮ নম্বর বাসা থেকে উত্তরা পশ্চিম থানার পুলিশের সহায়তায় নিকলী থানার পুলিশ আনোয়ারুল হককে গ্রেপ্তার করে। পরে বৃহস্পতিবার দুপুরে কিশোরগঞ্জ আদালতে পাঠানো হলে আদালত থাকে কারাগারে পাঠান।
চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হক উপজেলার সিংপুর ইউনিয়নের ভাটিবরাটিয়া গ্রামের মৃত আঃ আজিজের ছেলে।

থানা সূত্র ও মামলার বিবরণে জানা যায়, চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হক ইচ্ছাকৃত দীর্ঘ দিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে আক্রমণ করে মিথ্যা তথ্য প্রচার করে মানহানি ও ভিতি প্রর্দশন করে আচ্ছেন। এ ঘটনায় নিকলী সদর ইউনিয়নের ধুপাহাটি গ্রামের কারার শাহরিয়া আহম্মেদ তুলিপ বাদী হয়ে গত বুধবার রাতে ( ৮ জানুয়ারি) ইউপি চেয়ারম্যানসহ তিন জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত নামা আরো চারজনকে আসামি করে নিকলী থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ এর ২৫ ( ২৯), (৩১), (৩৫) ধারায় মামলা দায়ের করেন।

এ মামলার প্রধান আসামি ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হককে বুধবার রাতে ঢাকার উত্তরা থেকে গ্রেপ্তার করে কিশোরগঞ্জ আদালতে হাজির করেন। আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।

নিকলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামছুল আলম ছিদ্দিকী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পলাতক অন্য আসামিদেরকে গ্রেপ্তারের অভিযান চলছে।