কুমিল্লায় করোনার মাঝেই ১৭ হাজার পিস ইয়াবাসহ চিকিৎসক ও তার গাড়ি চালক আটক

রুহুল আমীন খন্দকার, বিশেষ প্রতিনিধি : মহামারী করোনা ভাইরাসের মধ্যেই কুমিল্লায় এক চিকিৎসকের গাড়ি তল্লাশি করে ১৭ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে ডিবি পুলিশ। বুধবার গভীর রাতে ঢাকা – চট্টগ্রাম মহাসড়কের দাউদকান্দি এলাকায় অভিযান চালিয়ে ইয়াবার চালানসহ ওই চিকিৎসক ও তার গাড়িচালককে আটক করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। জব্দকৃত ইয়াবার মূল্য ৫১ লাখ টাকা।

আটক চিকিৎসকের নাম ডা. রেজাউল হক (৪৫), ঢাকার উত্তরা আধুনিক মেডিকেলে কর্মরত রয়েছেন। তিনি কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার উপজেলার এলাহাবাদ গ্রামের শামসুল হকের ছেলে। চালক ধনু মিয়া ফরাজী (৩৬), শরীয়তপুর জেলার গোসাইরহাট উপজেলার বড় কাছনা গ্রামের মৃত ওমর আলীর ছেলে। এছাড়াও আটককৃত আসামীদের কাছে থাকা বাহন (ঢাকা মেট্রো-গ ২৩-৩৭১৯) নাম্বার ১টি সাদা প্রাইভেট কারও জব্দ করা হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সংবাদ সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেন, কুমিল্লার সুযোগ্য পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বিপিএম (বার) পিপিএম।

পুলিশ সুপার জানান, সারা বিশ্বের ন্যয় বাংলাদেশের মানুষ যখন মহামারী প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের অদ্ভুত পরিস্থিতিতে দিশেহারা। আমরা স্বস্ব অবস্থান থেকে নিজেদের প্রণের ঝুঁকি নিয়ে জনসচেতনতার পাশাপাশি করোনা প্রতিরোধে দিন-রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছি। দেশের এমন একটা ক্রান্তিলগ্নে চিকিৎসদের কাছেই মানুষের অনেক আশা আকাংঙ্খা কিন্তু বিধি বাম।

বুধবার গভীর রাতে লকডাউনের মাঝেই চিকিৎসক রেজাউল হক চট্টগ্রাম থেকে ঢাকা যাচ্ছিলেন। ওই চিকিৎসকের গাড়িতে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা রয়েছে এমনি গোপন তথ্য আসে পুলিশের কাছে। এর’ই পরিপ্রেক্ষিতে জেলা গোয়েন্দা শাখার পরিদর্শক ইকতিয়ার, এসআই নজরুল, এসআই পরিমলসহ সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স মহাসড়কে অবস্থান নেন।

এ সময় রাতে মহাসড়কের কুমিল্লা সীমান্তে প্রবেশের পরই পুলিশ ওই চিকিৎসকের মাদক বহনকৃত গাড়িটিকে ফলো করে ধাওয়া করতে থাকে। পরে মহাসড়কের দাউদকান্দি এলাকায় গিয়ে আটক করতে সক্ষম হয়। এ সময় গাড়িটিতে তল্লাশি চালিয়ে ১৭ হাজার পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়। জব্দকৃত ইয়াবার আনুমানিক মূল্য ৫১ লাখ টাকার মতো বলে প্রশাসনিক সুত্রে জানা যায়।