কেঁদে ক্ষমা চাইলেন জাতির কাছে কিম জং উন

অনলাইন ডেস্ক: উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মহামারী করোনা ভাইরাস জনগণের প্রত্যাশা মতো কাজ করতে না পারায় জাতির কাছে ক্ষমা চাইলেন উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন। উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতাসীন ওয়ার্কার্স পার্টির ৭৫ তম বার্ষিকীতে বক্তব্য রাখার সময় কিমকে চোখের পানি মুছতেও গেছে ।

কিম জং বলেন, উত্তর কোরিয়ার মানুষের প্রত্যাশা মতো আমি কাজ করতে পারিনি এর জন্য আমি ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। এই কথা বলার সময় নিজের চশমা খুলে চোখও মুছে নেন কিম।

পূর্বপুরুষ ও ঐতিহ্যের কথা উল্লেখ করে কিম বলেন, দ্বিতীয় কিম সাং ও কিম জগ ইলের উদ্দেশ্যে পূরণ করার জন্য দেশের মানুষ আমাকে এই দায়িত্ব অর্পণ করেছেন। কিন্তু আমি অত্যন্ত চেষ্টা করেও ও গুরুত্ব দিয়েও লোকের জীবনে সমস্ত অসুবিধা কমাতে পারিনি। এর জন্য আমার আফসোস রয়েছে।

সমালোচকেরা বলছেন, কিম জং উনের এভাবে বদলে যাওয়ার পেছনে অন্যতম কারণ হচ্ছে করোনা ভাইরাস ও পারমাণবিক অস্ত্রের ওপরে বিধিনিষেধ। করোনা ও পারমাণবিক অস্ত্রের ওপর বিধিনিষেধের কারণে তার নেতৃত্বের উপর প্রচুর চাপ রয়েছে বলে মনে করছেন অনেকে।

নিজের আবেগময় বক্তৃতায় করোনার জেরে সারা বিশ্বজুড়ে চ্যালেঞ্জিং সময়ের কথা উল্লেখ করেন। একই সঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতি করার ইচ্ছাও প্রকাশ করেন তিনি। যদিও যুক্তরাষ্ট্র নিয়ে তেমন কিছু জানান নি তিনি। দ্য গার্ডিয়ান।