চাঁদপুরে বিনা পারিশ্রমিকে দুই বিঘা জমির ধান কেটে দিল মইনীয়া যুব ফোরামের সদস্যরা

মোঃ আরিফ হোসেন: মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মহামারী করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে দেশের সাধারণ কৃষকদের বাঁচাতে, দেশের মানুষদের বাঁচাতে বিভিন্ন কর্মসূচি দিয়েছেন।তারই ধারাবাহিকতার অংশ হিসেবে, মইনীয়া যুব ফোরাম এর প্রতিষ্ঠাতা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজ ভান্ডারীর নির্দেশে।

খলিফায়ে গাউছুল আজম শাহ মোঃমনির হাসান খানের নেতৃত্বে চাঁদপুর সদর উপজেলার ৬নং মৈশাদী ইউনিয়ন পরিষদের ৩নং ওয়ার্ডের সনাতন ধর্মালম্বী তপন চক্রবর্তী নামে এক গরীব কৃষকের পাকা ধান কেটে দিয়েছে মইনীয়া যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় ও চাঁদপুর জেলা শাখার সদস্যরা।

বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) সকাল ১০টা থেকে তপন কুমার চক্রবর্তী কৃষকের পাকা ধান কেটে ঘরে তুলে দেন তারা। মইনীয়া যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় ও জেলা শাখার নেতাকর্মী নিয়ে প্রান্তিক কৃষকের ধান কেটে ঘরে পৌছে দিয়েছেন তারা।

মইনীয়া যুব ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য মাইনুল ইসলাম দুলু পাটোয়ারী বলেন, মইনীয়া যুব ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশ দিয়েছে কৃষকদের পাশে থাকতে। যেকোনো মানবিক সঙ্কটে সাধারণ মানুষের পাশে থাকতে।স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পাই শ্রমিক সংকটের কারণে কৃষক তার পাকা ধান কাটতে পারছে না। কাল বৈশাখী মাস, যে কোনো সময়ে ঝড় বৃষ্টি হলে ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই আমরা মইনীয়া যুব ফোরাম কেন্দ্রীয় কিছু সদস্য ও চাঁদপুর জেলা শাখার সদস্য ধান কাটার সরঞ্জাম নিয়ে হাজির হই। এসময় সহযোগীতা করেন মইনীয়া যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সহ শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মোঃ মেহেদী হাসান, সদস্য সুমন, রিয়াদ গাজী,আরিফ বেপারী, ইমান, ফারুক. আনিসুল, দীপু, রাশেদ সহ আরো অনেকে। এই কার্যক্রম চলমান থাকবে ইনশাআল্লাহ।

কৃষক তপন চক্রবর্তী জানান, প্রথমে আমি বিশ্বাসই করতে পারছিলাম না, খলিফা মনির ভাই সহ তার সহকর্মীরা বিনা পারিশ্রমিকে আমার জমির ধান কেটে ঘরে তুলে দেবে। খলিফা মনির ভাই ও তার সহকর্মীরা বৃষ্টিতে ভিজে আমার দুই বিঘা জমির ধান কেটে দেয়। তারা ধান কেটে দেয়ায় আমার অন্যরকম আনন্দ লাগতেছে।সেই সাথে আনন্দ ও উৎফুল্ল কন্ঠে কৃষক তপন চক্রবর্তী মাইজভান্ডার দরবার শরীফের বর্তমান গদিনিশিন নবী বংশের ৩১ তম পাক আওলাদ সৈয়দ সাইফুদ্দিন আহমেদ মাইজভান্ডারী কে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।