চাঁদপুরে মাতাল হয়ে মোটরসাইকেল চালোনায় দুর্ঘটনা, আহত যুবক হাসপাতালে ভর্তি

সিনিয়র স্পেশাল করেসপন্ডেন্টঃ চাঁদপুরে মাদকাসক্ত বখাটে যুবকরা বেপরোয়া হয়ে মোটরসাইকেল চালানোর কারণে দুর্ঘটনা বেরিয়ে যাচ্ছে।প্রবাদ আছে একটি দুর্ঘটনা সারা জীবনের কান্না তা জেনেও সড়ক-মহাসড়কে বেপরোয়া গতিতে মোটর সাইকেল চালানোর কারণে সম্প্রতিকালে বেশ কয়েকজন যুবক অকালে প্রাণ হারিয়েছে।

চাঁদপুর সদর উপজেলার ১২ নং চান্দ্রা ইউনিয়ন ৩ নং ওয়ার্ডের রিক্শাচালক ফাজিল দর্জির ছেলে বাবু দর্জি মাতাল হয়ে মোটরসাইকেল চালিয়ে অসহায় এতিম এক যুবকের গায়ে উপর উঠিয়ে দিয়ে দুর্ঘটনা ঘটায়।গুরুতর আহত অবস্থায় এতিম অসহায় যুবক শামীমকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত ডাক্তার তার অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে রেফার করেন।

দুর্ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার রাতে ১৩ নং হানারচর ইউনিয়ন এর হরিনা বাজার সংলগ্ন বেরিবাধের রাস্তার উপর।গুরুতর আহত শামীম বর্তমানে ঢাকায় হাসপাতালে জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে ভর্তি রয়েছে।স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন,চান্দ্রা ইউনিয়ন রিকশাচাল ফাজিল দর্জির ছেলে বাবু দর্জি এলাকার রশিদ সাহেবের ছেলের পালসার মোটরসাইকেল নিয়ে মাদক বিক্রির উদ্দেশ্যে হরিনা যায়।নেশাগ্রস্ত অবস্থায় সে মোটরসাইকেল বেপরোয়া গতিতে চালিয়ে পথচারী শামীমের গায়ের উপর উঠিয়ে দেয়।শামীমের হাত-পা ভেঙ্গে গিয়ে ব্যাপক আঘাতপ্রাপ্ত হয়।

পরে স্থানীয়রা বখাটে যুবক ও মাতাল বাবুর মোটরসাইকেল আটকে রেখে চিকিৎসার জন্য আহত শামীমকে হাসপাতালে পাঠায়।

দুর্ঘটনা কবলিত শামীমের চিকিৎসার খরচ চালানোর কথা বলে বখাটে ও নেশাগ্রস্ত বাবু লোকজন নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মোটরসাইকেলটি ছিনিয়ে নিয়ে আসে।আহত শামীমের বাবা বেশ কয়েক বছর পূর্বে মারা যায় তার মা অন্যের বাসায় কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে।এই অসহায় যুবকের চিকিৎসার খরচ চালাতে তারা হিমশিম খাচ্ছে। বর্তমানে সে জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে হাসপাতালের বেডে ছটফট করছে।