চাঁদপুর কচুয়ায় চকলেট দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ২য় শ্রেণী পড়ুয়া শিশু ছাত্রীকে ধর্ষণ

সিনিয়র স্পেশাল করেসপন্ডেন্টঃ চাঁদপুর কচুয়া উপজেলায় চকলেট দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে দুরসম্পর্কের লম্পট দাদা ঘরে নিয়ে সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

রাতে ১১ টায় তার বাবা-মা রক্তাক্ত অবস্থায় শিশুটিকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে গাইনি বিভাগে ভর্তি করায়।
ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার রাতে কচুয়ায় উপজেলার তুলপাই ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের পালাখাল খিলমেহের মিজি বাড়িতে।ধর্ষিতার শিশুর মা মাহমুদা বেগম জানান, পাশের ঘরের দূর সম্পর্কের দাদা তালেব আলী মিজি পুত্র লম্পট জামাল মিজি (৬৫) রাতে সেন্ট্রার ফুড চকলেট খাওয়ানোর কথা বলে তার ঘরে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ধর্ষণের পর তাকে ছেড়ে দিলে সে কাঁদতে কাঁদতে এসে এই ধর্ষণের ঘটনাটি জানান। এ সময় তার গোপন অঙ্গ দিয়ে রক্ত বের হতে দেখে তাৎক্ষণিক চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে এনে ভর্তি করানো হয়।

হাসপাতালে আনার পর কর্তব্যরত ডাক্তার শিশুর স্যাম্পল নিয়ে চিকিৎসা দেন।শিশু কন্যা কচুয়া উপজেলার খিলমেহের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২ শ্রেনির ছাত্রী।আমরা এই লম্পট জামাল মিজির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি জানাই।
এদিকে এই ধর্ষণের ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য স্থানীয় দালাল চক্ররা ধর্ষণকারীর পক্ষ নিয়ে চেষ্টা তদবির চালিয়ে যাচ্ছে।হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার জানান, ধর্ষণের শিকার হওয়া শিশুটিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।শিশুটি অতিরিক্ত ব্লিডিং হওয়ার কারণে শরীর কিছুটা দুর্বল হয়েছে। তার স্যাম্পল সংগ্রহ করা হয়েছে।