চাঁদপুর জেলা জজের খাস কামরায় ডাকাতি, ঘটনাস্থল পরিদর্শনে জেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক

এইচ এম আরিফ হোসেন//
চাঁদপুর জেলা জজ এস. এম. জিয়াউর রহমান এর খাস
কামরায় ডাকাতি হয়েছে।

৮ মে রোববার সকালে বিষয়টি সকলের নজরে আসে। আর এর পরপরই ঘটনা তদন্তে নেমেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক টিম।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন জেলা জজ কোর্টের নাজির নাদিম খান। তিনি বলেন, গতকাল রাতে আদালত ভবনে আমাদের জজ স্যারের খাস কামরায় ডাকাতি হয়েছে।

এতে করে কম্পিউটারসহ গুরুত্বপূর্ণ নথি গায়েব হয়ে গেছে। সকালে আমরা অফিস করতে আসলে বিষয়টি নজরে আসে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে বিষয়টি জানানো হলে তারা তাৎক্ষণিক এসে তদন্ত করছেন।

এদিকে এ ঘটনা জানাজানি হলে বিষয়টি ‘টক অব দ্যা টাউনে’ রূপ নেয়। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কি কি নথি ও ফাইল পত্র গায়েব হয়েছে তা নিয়ে সংশ্লিষ্টদের কেউ-ই কথা বলতে রাজি হয়নি।

খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আবু নাঈম পাটওয়ারী দুলাল। এসময় উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মজিবুর রহমান ভূঁইয়া, সদস্য এডভোকেট বদরুজ্জামান কিরণ, সাবেক সদস্য এডভোকেট জসিম উদ্দিন পাটোয়ারী, কচুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা, এডভোকেট হেলাল উদ্দিন, ফরিদগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা এডভোকেট মোহাম্মদ আলী সহ বিজ্ঞ আইনজীবী গণ।
চাঁদপুর সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রশিদ, ওসি তদন্ত সুজন কান্তি বড়ুয়া উপ-পরিদর্শক গান সহ আইন-শৃংখলার বিভিন্ন এজেন্সি ব্যাপকভাবে অভিযান চালাচ্ছে।
পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ এর নেতৃত্বে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী রয়েছে কঠোর অবস্থানে। গোয়েন্দা জালে আসামিগণ অচিরেই নিশ্চিত আটক হবে মর্মে জানান সংশ্লিষ্ট কর্তাব্যক্তিগণ।
ও পরিত্যক্ত জায়গা থেকে মালামাল উদ্ধার হলেও সিসিটিভির ফুটেজ দেখে চলছে আসামের শনাক্তকরণের প্রক্রিয়া।
ইতিমধ্যে কয়েক জনকে শনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছে মর্মে জানা যায়