চাঁদপুর মতলব দক্ষিণে এক বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ উদ্ধার ও ঘাতক আটক করছে থানা পুলিশ।

মোঃরবিউল আলমঃ চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ পৌরসভার উত্তর বাইশপুর গ্রামে সামছুন নাহার (৬৫) নামের এক বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (২৮ অক্টোবর) সন্ধ্যায় ওই গ্রামের ফকির বাড়ীতে এ ঘটনাটি ঘটে।

পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ওই বাড়ি মৃত রহিম মুন্সির চার মেয়ে ও দুই ছেলের মধ্যে নিহত শামসুন্নাহার তার স্বামীকে নিয়ে বাপের বাড়িতে থাকতো। ঘটনার দিন নিহতের স্বামী আব্দুর রাজ্জাক চিকিৎসার জন্য ঢাকায় অবস্থান করছিলেন। এদিকে ওই দিনই নিহতের ছোট ভাই মরহুম বোরহানউদ্দিন মুন্সির ছেলে পারভেজ (২৬) তার ফুফুর সাথে দেখা করার জন্য সকালে বাড়িতে আসে।

ওই বাড়ির একাধিক ব্যক্তি জানান, ঘটনার দিন সকালে পারভেজ তার ফুফু শামসুন্নাহারের সাথে ঝগড়া করে এবং দুপুরের পর বাড়ি থেকে চলে যায়। সে বাড়ি থেকে চলে যাওয়ার পর শামসুন্নাহার কে ঘরের বাইরে বের হতে দেখা যায়নি। সন্ধ্যার আগ মুহূর্তে হাঁস-মুরগি ঘরে নেওয়ার জন্য বাড়ির এক মহিলা ওনাকে ডাকাডাকি করে কোন সাড়া শব্দ পায়নি। পরে বাড়ির কয়েকজন দরজা ধাক্কা দিয়ে ভিতরে প্রবেশ করে শামসুন্নাহারের গলাকাটা লাশ দেখতে পায়। আর এ বিষয়টি মতলব দক্ষিণ থানা পুলিশকে অবহিত করলে থানার ওসি ঘটনাস্থলে জরুরী ভিত্তিতে আসেন।

স্থানীয় সূত্রে আরো জানা যায় যে, নিহত শামসুন্নাহারের দুই ভাইয়ের মধ্যে বোরহানউদ্দিন মুন্সির পরিবার মতলব সদরের নবকলস এলাকায় বসবাস করে। আরেক ভাই কবির হোসেন চাকুরীর সুবাদে ঢাকায় বসবাস করেন। নিহতের তিন মেয়ের সকলেই শ্বশুর বাড়িতে থাকে।

একটি অসমর্থিত সূত্রে জানা যায়, পারভেজ তার মায়ের কাছে হত্যাকান্ডের ঘটনা স্বীকার করেছে। তবে সে এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে বলে জানা যায়।

থানার ওসি স্বপন কুমার আইচ বলেন, হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি খুবই স্পর্শকাতর, সিআইডি ও পি বি আই এর টিম ঘটনাস্থলে আসছে।এবং আমরা ঘাতককে আটক করেছি।