তাড়াইলে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ২ হাজার ২০০ কেজি চাল উদ্ধার: মামলা দায়ের গ্রেফতার ১

রুহুল আমিন, তাড়াইল, কিশোরগঞ্জ প্রতিিনিধ
: কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ৪৪ বস্তা চালসহ সাবেক যুবলীগ নেতাকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আটক করেছে তাড়াইল থানা পুলিশ। বাকী ২ জন আসামী পলাতক রয়েছে। তাড়াইল খাদ্যগুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বাদী হয়ে ৩ জনকে আসামী করে ১৯৭৪ সনের বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করেছেন।

মামলা নং ৬
আসামীরা হলো, উপজেলার দামিহা ইউনিয়নের মৃত শামছুদ্দীন মিয়ার ছেলে সাবেক যুবলীগ নেতা রমজান আলী (৪০), একই গ্রামের মৃত শামছুদ্দীন মিয়ার ছেলে আইনুল (৩৫) ও রাহেলা গ্রামের মৃত আহম্মদ উদ্দীন খাঁর ছেলে আবু খাঁ (৫৫)।  

জানা গেছে, ১৩ এপ্রিল সোমবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে প্রথমবার বিকাল ৫ টায় অভিযান চালিয়ে ১৭ বস্তা ও রাত ৯ টায় দ্বিতীয়বার অভিযান চালিয়ে ২৭ বস্তা খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর ১০ টাকা কেজির ৪৪ বস্তা চাল তাড়াইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তারেক মাহমুদ ও তাড়াইল থানার উপ-পরিদর্শক হাসমত আলীর সহযোগীতায় উপজেলার দামিহা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ডিলার রাহেলা গ্রামের আইনুল ইসলামের ভগ্নিপতি আবু খাঁ ও আপন ভাই পাঞ্জু মিয়ার ঘর থেকে ৪৪ বস্তা চালসহ ডিলারের ভাই দামিহা ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি রমজানকে আটক করে তাড়াইল থানায় নিয়ে আসে।

তাড়াইল থানার উপ- পরিদর্শক হাসমত আলী বলেন,খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ৪৪ বস্তা চাল কালোবাজারে বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে ডিলার আইনুলের ভগ্নিপতি আবু খাঁর ও আপন ভাই পাঞ্জু মিয়ার ঘর থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ইউএন তারেক মাহমুদসহ আমি অভিযান চালিয়ে ৪৪ বস্তা চালসহ ডিলারের ভাই সাবেক যুবলীগ নেতা রমজানকে আটক করে থানায় নিয়ে আসি।

তাড়াইল থানার ওসি মুজিবুর রহমান বলেন, দুইবার অভিযান চালিয়ে ৪৪ বস্তা চালসহ কালোবাজারি রমজানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ২ জন আসামী পলাতক রয়েছে। তাদের গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে।