তাড়াইলে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী শনিবার ৪ জানুয়ারি কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলার রাউতি ইউনিয়নে পালিত হয়েছে। জানা যায়, উপজেলার রাউতি ইউনিয়নের উদ্যোগে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে আনন্দ শোভাযাত্রা শেষে পুরুড়া বাজার ডাচ বাংলা ব্যংকের সামনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা ছাত্রলীগের ছাত্র নেতা সারোয়ার হোসেন লিটনের সভাপতিত্বে ও মুহিবুল হক সুমনের সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইকবাল হোসেন তারিক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা রাউতি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন আজম, রাউতি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ৪ নং ওয়ার্ড সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম জয়, উপজেলা রাউতি ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সানাউল করিম মুহিন, কৃষক লীগের সভাপতি হানিফ, বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি আবদুল হাই, সাবেক ছাত্র নেতা মশিউর রহমান কায়সার, শাফায়েত মাহমুদ আকাশসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন,      ১৯৪৮ সালের এই দিনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশের সবচেয়ে প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী এ ছাত্র সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা করেন। ছাত্রলীগ দেশের একটি প্রধান রাজনৈতিক ছাত্র সংগঠন। অবিভক্ত পাকিস্তানের সর্বপ্রথম ছাত্র সংগঠন হচ্ছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।
১৯৪৮ সালের এই দিনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক মুসলিম হলে ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। জাতি গঠনের প্রতিটি সোপানে ছাত্রলীগের রয়েছে গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা। নানা চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে সংগঠনটি আজ ৭২ বছরে পা দিয়েছে। সাড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। 

প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর বায়ান্নর ঐতিহাসিক ভাষা আন্দোলন, সাতান্নর শিক্ষক ধর্মঘট, বাষট্টির শিক্ষা আন্দোলন, ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান, একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে ছাত্রলীগ অগ্রণী ভূমিকা পালন করে। স্বাধীন বাংলাদেশেও বিভিন্ন সময়ে গণতান্ত্রিক আন্দোলনে আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন ছাত্রলীগের সংগ্রামী ভূমিকা বিশেষভাবে স্মরণযোগ্য। শুরুতে পাকিস্তান ছাত্রলীগ নাম থাকলেও দেশ স্বাধীনের পর এর নাম হয় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।

তবে সময়ের পরিক্রমায় ছাত্রলীগ একাধিক ধারায় বিভক্ত হয়। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের পাশাপাশি জাসদ ছাত্রলীগ এবং জাতীয় ছাত্রলীগ নামেও দুটি সংগঠন নানা সময়ে জন্ম নেয়। জাতীয় ছাত্রলীগের অস্তিত্ব এখন আর তেমন না থাকলেও জাসদ ছাত্রলীগ জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের ছাত্রসংগঠন হিসেবে কাজ করছে।