তাড়াইলে প্রাথমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর অভিযোগ ইউএনও বরাবর

রুহুল আমিন, তাড়াইল (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ও সহকারী শিক্ষিকা দু’জনে বিদ্যালয়ের টিন আত্মসাৎ করার কারণে এলাকাবাসীর পক্ষে বিদ্যালয়ের সহ-সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা যায়, উপজেলার তাড়াইল-সাচাইল সদর ইউনিয়নের পংপাচিহা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা কল্যাণি রানী দাস ও সহকারী শিক্ষিকা হাসিনা আক্তার ২০১৬-১৭ অর্থ বছরের বাজেটে স্কুল মেরামত করার পর ৮০ থেকে ৯০ টি পুরাতন টিন আত্মসাৎ করার কারণে বিদ্যালয়ের সহ-সভাপতি হেদায়েতুল ইসলাম ভূঞা ১৭ নভেম্বর (২০১৯) উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তারেক মাহমুদ বরাবর অভিযোগ দায়ের করেছেন।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা কল্যাণী রানী দাসের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ২০১৬-১৭ অর্থ বছরের বাজেটে স্কুল মেরামতের ১৫০ টি পুরাতন টিন স্টোর রুমে রক্ষিত ছিল। নতুন কমিটি গঠন হওয়ার পর আমি এসব মালামাল তাদেরকে বুঝিয়ে দিয়েছি। আমি কোনো কিছু আত্মসাৎ করিনি।

বিদ্যালয়ের সহ-সভাপতি হেদায়েতুল ইসলাম ভূঞা অভিযোগ করে বলেন, প্রধান শিক্ষিকা কর্তৃক বিদ্যালয়ের মালামাল আত্মসাতের বিষয়টি আমি বিদ্যালয়ের সহ-সভাপতি হওয়ায় এলাকাবাসীর পক্ষে ইউএনও/ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বরাবর অভিযোগ দিয়েছি।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম ভূঞা শাহীনের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এমন একটি অভিযোগ আমি পেয়েছি। আমি ইউএনও কে তদন্তপূর্বক ব্যবস্হা নেয়ার জন্য সুপারিশ করেছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তারেক মাহমুদ অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, উপজেলার পংপাচিহা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা কর্তৃক বিদ্যালয়ের টিন আত্মসাৎ করা প্রসঙ্গে একটি অভিযোগ আমি পেয়েছি। বিষয়টি তদন্তপূর্বক ব্যাবস্হা নেয়া হবে।