দলীয় নেতা-কর্মীদের সাথে নিয়ে কাজ করতে চান সাবেক চেয়ারম্যান

রুহুল আমীন খন্দকার, বিশেষ প্রতিনিধি : আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারী চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রিবার্ষিক কাউন্সিলে দলীয় নেতা কর্মীগণ যদি আমাকে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি পদে নির্বাচিত করেন, তাহলে আমি ব্যক্তিগত চাওয়া-পাওয়ার ঊর্ধ্বে গিয়ে জাতির পিতার আদর্শ ধারণ করে নিঃস্বার্থভাবে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে দল তথা জনগণের কল্যাণে আজিবন কাজ করে যাব।

প্রথমত দলের মধ্যে অতিতের লবিংগ্রপিং সহ সমস্ত ঝামেলা মিটিয়ে দলকে সুসংগঠিত করবো। দলের মধ্যে জামাযাত, বিএনপি থেকে আসা হাইব্রিডদের পরিবর্তে দলের জন্য ত্যাগী ও নিবেদিতদের অধিকার নিশ্চিত করবো। দলের ত্যাগী ও নির্যাতিত নেতাদের প্রকৃত মূল্যয়নের মাধ্যমে দলের বিভিন্ন পদে স্থান দিয়ে ঐতিহাসিক ধারাবাহিকতায় দলকে সচল রাখার যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবো। প্রতিটি ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডে তৃণমুল পর্যায়ে দলকে শক্তিশালী করবো। যাতে দেশে আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে গণতন্ত্র আরো শক্তিশালী হয়ে জনগনের শাসন প্রতিষ্ঠিত থাকে। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধ’ শেখ মজিবুর রহমানের আজীবন কালের স্বপ্ন দূর্নীতি, সন্ত্রাস, জঙ্গি, নিরক্ষরতা, ক্ষুধা, দারিদ্রমুক্ত সোনার বাংলা গড়তে ২০২১ ও ২০৪১ ভিষন বাস্তবায়নে গণতন্ত্রের মানসকন্যা মাদার অব হিউম্যানিটি জন-নেত্রী শেখ হাসিনার হাত’কে শক্তিশালী করার মাধ্যমে দেশকে বিশ্বের মধ্যে মাথা উচুঁ করে দাঁড়াতে নিজের জীবনের বিনিময়ে হলে ও সহযোগিতা করবো। পাশাপাশি শিবগঞ্জকে সন্ত্রাস, মাদক, জঙ্গি, অস্ত্র ও বাল্য বিয়ে রোধ ও নারীদের ক্ষমতায়ন বৃদ্ধি করে আধুনিক শিবগঞ্জে পরিণত করবো ইনশাল্লাহ। কথাগুলো বললেন আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারী শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রিবার্ষিক কাউন্সিলে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সভাপতি পদে প্রার্থী, ছাত্রলীগ থেকে উঠে আসা আঃলীগ নেতা সাবেক চেয়ারম্যান আবু আহম্মদ নজমুল কবির মুক্তা মিয়া। 

তিনি ১৯৮১ সাল থেকে এ পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের আদর্শে আদর্শিত হয়ে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন পদে থেকে দলের জন্য কাজ করে গেছেন। তিনি বর্তমানে এলাকার কয়েকটি মাদ্রাসা ও উচ্চবিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি। শুধু তাই নয় তিনি ছাত্র জীবনে আদিনা কলেজের ছাত্রলীগের জি এস (সম্পাদক), চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কৃষকলীগের সাবেক যুগ্ন আহ্বায়ক, শিবগঞ্জ উপজেলা আঃলীগের সাবেক যুগ্ন সাধারন সম্পাদক, দুর্লভপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান সহ এলাকার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন পদে অধিষ্ঠিত থেকে সুষ্ঠুভাবে দায়িত্ব পালন করেছেন বা এখনও পালন করে চলেছেন।

আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা বলেন ২০১৩-১৪ সালে যখন জামায়াত বিএনপির তান্ডবে শিবগঞ্জে আওয়মীলীগ অভিভাবকহীন হয়ে পড়েছিল, তখন এই মুক্তা মিয়ার নেতৃত্বেই বর্তমান সংসদ সদস্য ডা: সামিল উদ্দিন আহম্দে শিমুলসহ আওয়ামীলীগের বেশ কয়েকজন নেতা জামায়াত বিএনপির হাতে নির্যাতিত নেতা কর্মীদের পার্শে থেকে তাদের সেবা দিয়েছেন এবং দলকে সুসংগঠিত করতে সার্বক্ষণিক চেষ্টা চালিয়ে গেছেন। দলের জন্য জীবন বাজী রেখে কাজ করে গেছেন। আমাদের অভিভাবক হিসাবে পথ নির্দেশনা দিয়েছেন। 

তিনি শুধু নির্যাতিত আওয়ামীলীগের অভিভাবক ছিলেন না। তিনি ঐ সময় বর্তমান সংসদ সদস্য ডা: সামিল উদ্দিন আহম্মেদ শিমুলকেও অভিভাবক হিসাবে পথ দেখিয়েছেন আগলিয়ে রেখে দিক নির্দেশনা দিয়ে ছিলেন। সেই জাতীয় নির্বাচনের তিনি আহ্বায়কের দ্বায়িত্ব পালন করে ছিলেন। যার কারণেই উনার সু-পরামর্শ ও দিক নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করে জনগণের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করে জেলার মধ্যে একমাত্র শিবগঞ্জ উপজেলাতেই আওয়ামীলীগ তথা নৌকার প্রার্থীকে জয়যুক্ত করিয়েছে। তিনি যদি উপজেলা আওয়মীলীগের সভাপতি নির্বাচিত হোন তাহলে দলের জন্য, দলের ত্যাগী নেতা কর্মীসহ শিবগঞ্জ বাসীর জন্য অবশ্যয় কল্যান বয়ে আনবে।

উল্লেখ্য, যে দীর্ঘ সাড়ে ৫ বছর পর আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২০ ইং শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রিবার্ষিক কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ কাউন্সিলে ১৫টি ইউনিয়ন, ১টি পৌরসভা ও উপজেলা কাউন্সিল মিলে মোট ৫০১ জন কাউন্সিলার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের কমিটি নির্বাচিত হতে যাচ্ছে।