দেবীদ্বার উপজেলা বিএনপির সভাপতির জানাযা পুলিশের উপস্থিতিতে দাফন সম্পন

এ আর আহমেদ হোসাইন (দেবীদ্বার-কুমিল্লা)প্রতিনিধি: কুমিল্লা দেবীদ্বারের ন্যায় বিচারের প্রতীক খ্যাত আলহাজ্ব মনিরুল হক ভূঁইয়া(৭৮) আর নেই। তিনি সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় দেবীদ্বার পৌর এলাকার বিজলীবাঞ্জার গ্রামে নিজ বাড়িতে বার্ধক্য জনিত নানা রোগে আক্রান্ত ও করোনা উপস্বর্গ নিয়ে ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজেউন। তার মৃত্যু সংবাদে দলমত নির্বিশেষে সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে আসে।

তবে এ নেতার জানাযা বাদ আসর বিজলীবাজার ঈদগাহ মাঠে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও পুলিশের উপস্থিতিতে বিকেল ৪টা ১০ মিনিটেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে জানাযা সম্পন্ন করে ফেলা হয়েছে।

করোনা রোগিদের মৃত্যুর পর দাফন সম্পন্ন করার দায়িত্বে নিয়োজিত ছাত্র লীগ কুমিল্লা উত্তর জেলা সভাপতি আবু কাউছার অনিক’র নেতৃত্বে ‘হেলো ছাত্র লীগ’ টিমের নেতৃত্বে দাফন সম্পন্ন হয়েছে কিনা জানতে চাইলে হেলো ছাত্র লীগ দাফন টিম প্রধান ছাত্র লীগ কুমিল্লা উত্তর জেলা সভাপতি আবু কাউছার অনিক জানান, আমরা শোনেছি বিএনপি উপজেলা সভাপতি আলহাজ্ব মনিরুল হক ভূঁইয়া করোনা উপস্বর্গ নিয়ে মারা গেছেন।

তাই আমরা আমাদের টিম নিয়ে ঘটনাস্থলে প্রস্তুত ছিলাম। পরিবার এবং প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমাদের দাফনের অনুমতি না দেয়ায় আমরা উপস্থিত থেকেও দাফন কার্যক্রমে অংশ নেই নাই। নির্ধারিত সময়ের পূর্বে দাফন সম্পন্ন হওয়ার কারন জানতে চাইলে অনিক জানান, বিএনপির এ নেতার দাফন সম্পন্নে ব্যাপক সাংগঠনিক আয়োজনে করার প্রস্তুতির সংবাদে প্রশাসন করোনা ঝুকি এড়াতেই নির্ধারিত সময়ের পূর্বে দাফন সম্পন্ন করার পরামর্শ  দিলে, তার পরিবারের পক্ষ থেকে ওই দাফন সম্পন্ন করা হয়। 

মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, আত্মীয় স্বজন ও বহু গুণগ্রাহী এবং রাজনৈতিক সহকর্মী রেখে যান। প্রবীণ রাজনীতিক ও সালিসদার প্রয়াত আলহাজ্ব মনিরুল হক ভূঁইয়া উপজেলা বিএনপির বর্তমান সভাপতি ও দেবীদ্বার সদর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন।
তিনি ছাত্র জীবনে ছাত্র ইউনিয়ন ও পরবর্তীতে ন্যাপ প্রধান অধ্যাপক মোজাফ্ফব আহমেদ’র একজন সাচ্চা অনুস্মারী ছিলেন। ১৯৯১ সালে সাবেক সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মঞ্জুরুল আহসান মূন্সীর অনুরোধে ন্যাপ ছেড়ে বিএনপিতে যোগদান করেন।

মনিরুল হক ভূঁইয়া ব্যাক্তি জীবনে নি:সন্তান ছিলেন। তিনি রাজনৈতিক নেতা পরিচয়ের চেয়ে বেশী পরিচিতি ছিলেন স্বজ্জন ও ন্যায় পরায়ন বিচারক হিসেবে। সর্বজন শ্রদ্ধেয় এ ব্যাক্তি দলমত নির্বিশেষে সকলের নিকট সাদা মনের মানুষ হিসেবে একজন ন্যায় বিচারকের প্রতীক ছিলেন।  সামাজিক, পারিবারিক, জমি সংক্রান্ত বিরোধ মিমাংসায় শুধু দেবীদ্বার উপজেলায়ই নন, পাশ্ববর্তী  উপজেলা গুলোতেও সকলের নিকট এবং- বিচার প্রার্থীদের ভরসার ও নির্ভরযোগ্য ব্যাক্তি ছিলেন্। তিনি ফতেহাবাদ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ সভাপতি, দেবীদ্বার আলহাজ্ব জোবেদা খাতুন মহিলা কলেজ ও দেবীদ্বার রেয়াজ উদ্দিন সরকারী মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ সদস্য সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানও সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন।

স্বজনরা জানান, মৃত্যুর কিছুক্ষণ পূর্বেও তিনি বিভিন্ন লোকজনের সাথে সেল ফোনে কথা বলেছেন। তবে গত কয়েকদিন যাবত তিনি জ্বরে ভোগছিলেন, এক পর্যায়ে তিনি অসুস্থ্য বোধ করছেন বলে জানান, কিছুক্ষনের মধ্যেই তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।  সংবাদ পেয়ে দেবীদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে একদল স্বাস্থ্য কর্মী মরহুম মনিরুল হক ভূঁইয়ার করোনা নমুনা সংগ্রহ করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আহাম্মেদ কবির।

তার মৃত্যুতে কুমিল্লা-৪ দেবীদ্বার নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মঞ্জুরুল আহসান মূন্সী, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির  সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আউয়াল খান, কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মাজেদা আহসান মূন্সী, ব্যারিষ্টার রিজভিউল আহসান মূন্সী,হংকং শাখা সভাপতি এ,এফ,এম তারেক মূন্সী, বিএনপি   উপজেলা সাধারন সম্পাদক মোঃ গিয়াস উদ্দীন আহমেদ, কুমিল্লা উত্তর জেলা মহিলা দল সভাপতি সুফিয়া বেগম প্রমূখ ব্যাক্তিবর্গ গভীর শোক ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।