নবজাতককে বাঁচাতে কাশ্মির থেকে বিমানে আসছে মায়ের দুধ!

নিউজ ডেস্ক: জিকমেটের স্ত্রী ৩০ বছর বয়সী দোরজে পালমো চলতি বছরের ১৬ জুন হাসপাতালে ছেলে সন্তানের জন্ম দেন। কিছুক্ষণ পরই দেখা যায়, শিশুটি খেতে পারছে না। মাইসুরুতে তার বাবা-মাকে রেখে শিশুটিকে দিল্লিতে নিয়ে আসেন মামা।

ততক্ষণে মাইসুরু থেকে বিমানে দিল্লি পৌঁছেছেন জিকমেট। চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে দেখেন, নবজাতকের খাদ্যনালী ও শ্বাসনালী একসঙ্গে জুড়ে আছে। জটিল অস্ত্রোপচার করা হয়। চার দিনের শিশুর জন্য সেটা ছিল কঠিন লড়াই।

পরের তিন দিন নাকে নল লাগিয়ে খাওয়ানো হচ্ছিল। চিকিৎসকরা বললেন, মায়ের দুধ আনতে হবে। কিন্তু মা আসতে পারছেন না দিল্লিতে। এ অবস্থায় এগিয়ে আসে একটি বিমান সংস্থা। দূরত্বকে অগ্রাহ্য করে দিল্লির হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নবজাতককে বাঁচাতে কাশ্মির থেকে প্রতিদিন দুধ পাঠাচ্ছে তার মা। মায়ের দুধ ভর্তি পাত্রগুলো তারা দিল্লিতে প্রতিদিন পৌঁছে দিচ্ছে বিনা পয়সায়।

দিল্লি বিমানবন্দর থেকে সেই দুধের পাত্র পৌঁছে যাচ্ছে বেসরকারি হাসপাতালে। ৩৩ বছর বয়সী জিকমেট ওয়াঙ্গদুস আর তার আত্মীয়কে প্রতিদিনই ছুটতে হচ্ছে দিল্লি বিমানবন্দরে।