নরসিংহপুর ফেরিঘাটে পণ্যবাহী ট্রাকের তীব্র জট

সাইফুল ইসলাম, শরীয়তপুর: শরীয়তপুর-চাঁদপুর নৌপথের নরসিংহপুর ফেরিঘাটে পণ্যবাহী ট্রাকের তীব্র জট সৃষ্টি হয়েছে। শনিবার বেলা ১১টায় ঘাটটিতে পার হওয়ার জন্য ফেরির অপেক্ষায় ৭শতাধিক গাড়ি সড়কে অপেক্ষা করছে।

আগে থেকেই বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌপথে যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার বন্ধ। আর ঈদযাত্রা উপলক্ষে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথেও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার। এতে ট্রাকের চাপ পড়েছে শরীয়তপুর-চাঁদপুর নৌপথের নরসিংহপুর ফেরিঘাটে। গত বৃহস্পতিবার থেকে ট্রাকের সারি দীর্ঘ হচ্ছে। ফেরিতে উঠতে অপেক্ষা করতে হচ্ছে তিন-চার দিন।

শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলায় নরসিংহ পুর ঘাট আর চাঁদপুর প্রান্তে সদর উপজেলার হরিণায় আরেকটি ঘাট রয়েছে। এ নৌপথে দুটি ঘাট ব্যবহার করে চট্টগ্রাম বিভাগে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার পণ্য ও যাত্রীবাহী গাড়ি চলাচল করে থাকে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) কর্মকর্তাদের সূত্রে জানা যায়, নৌপথটিতে পণ্য ও যাত্রীবাহী গাড়ি পারাপারের জন্য সাতটি ফেরি চলাচল করে। নরসিংহপুর ফেরিঘাটে আজ গিয়ে দেখা যায়, ঘাট থেকে খায়েরপট্টি পর্যন্ত সড়কে ও টার্মিনালে সাত শতাধিক ট্রাক আটকে আছে। অনেকে পারাপারের জন্য তিন চার দিন ধরে বসে আছেন।

সাতক্ষীরা বন্দর থেকে পেঁয়াজ নিয়ে চট্টগ্রাম যাবেন ট্রাকচালক মাহাবুব। ঈদের দিন রাতে নরসিংহপুর ঘাটে পৌঁছান তিনি। ট্রাকজট থাকায় ফেরিতে উঠতে পারছেন না। তিনি বলেন, দ্রুত মোকামে পৌঁছা দরকার। কিন্তু তিন দিন যাবত ঘাটে বসে আছি। আজ ফেরির সিরিয়াল পাব কি না, এর কোনো নিশ্চয়তা নেই। এভাবে ঘাটে বসে থাকলে ব্যবসায়ীদের ও আমাদের দুই পক্ষেরই লোকসান হবে।’

খুলনা থেকে আসা পণ্যবাহী ট্রাকচালক জালাল হোসেন বলেন, ‘আমাদের ভোগান্তির শেষ নেই।

গত বৃহস্পতিবার ঘাটে এসেছি এখনো বসা রয়েছি। কবে যে যাইতে পারবো বলতে পারিনা। অতিরিক্ত খাওয়ার খরচ, গোসলের কষ্ট, টয়লেটের কষ্ট হচ্ছে, কী আর করব।

আলুর বাজার ফেরিঘাটের ইজারাদার ও চরসেন্সাস ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জিতু মিয়া ব্যাপারী বলেন, দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের খুলনা-চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন এলাকায় যাতায়াতের জন্য মেঘনা নদীর ফেরিঘাটগুলো গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু ঈদ এলেই ফেরি চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি হয়। মানুষের দুর্ভোগ কমাতে ঘাটগুলোতে এখন ফেরির সংখ্যা বাড়ানো প্রয়োজন।

শরীয়তপুর-চাঁদপুর নৌপথের নরসিংহপুর ফেরিঘাটের ব্যবস্থাপক আবদুল মোমেন বলেন, ঈদে শেষে কর্মস্থল মুখী যাত্রীদের যাত্রা নিরাপদ ও দুর্ভোগমুক্ত রাখতে তিনটি নৌপথে পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার বন্ধ রয়েছে। তাই এ নৌপথের নরসিংহপুর ঘাটে ট্রাকের চাপ বৃদ্ধি পেয়েছে। ঈদের ছুটি শেষে পরিবহনের চাপ তাই কিছুটা সমস্যা হয়েছে। ঘাটে আটকে পড়া ট্রাকগুলো পারাপার করতে কমপক্ষে দু-তিন দিন সময় লাগবে।