নিয়মিত গ্যাস সরবরাহের দাবিতে গ্যাস অফিসে নারী-পুরুষের অবস্থান জিটি রোড ও তরপুরচণ্ডী এলাকাবাসী

0
চাঁদপুর পৌরসভার ১৫নং ওয়ার্ড চেয়ারম্যানঘাটা জিটি রোড ও তরপুরচণ্ডী এলাকায় গ্যাস সরবরাহে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গ্যাসের সরবরাহ অনিয়মিত হওয়ায় গ্রাহকদের দুর্ভোগ চরমে উঠেছে। নিয়মিত গ্যাস সরবরাহের দাবিতে ওই সকল এলাকার নারী-পুরুষ গ্যাস অফিসে অবস্থান নেন। এক পর্যায়ে তারা গ্যাস অফিসের সামনে বিক্ষোভ করতে থাকেন। পরে চাঁদপুর সদর মডেল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিবেশ শান্ত করেন এবং আগামী রোববারের মধ্যে গ্যাস অফিসের এরিয়া ম্যানেজার গ্যাস লাইন সংস্কার করবেন বলে সকলকে আশ্বস্ত করেন। স্থানীয় একাধিক নারীরা জানান, গত কয়েকমাস যাবত চেয়ারম্যানঘাটা, জিটি রোড থেকে তরপুরচণ্ডীর সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান রফিক সর্দারের বাড়ি পর্যন্ত এলাকায় দিনের বেশিরভাগ সময় গ্যাস থাকে না। অধিকাংশ সময় সকাল ৭টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এ এলাকায় গ্যাস থাকে না। আবার মাঝে মাঝে গ্যাস থাকলেও তার পরিমাণ থাকে খুবই কম, যা দিয়ে রান্নার কাজ করা সম্ভব হয় না। এ অবস্থায় স্থানীয় কিছু মানুষ লাকড়ির চুলায় নির্ভরশীল হয়ে পড়লেও বিপাকে পড়ছেন বহুতল ভবনে বসবাসকারীরা। কারণ ভবন বাসায় মাটির চুলা ব্যবহার করা অসুবিধাজনক। নিরূপায় হয়ে অনেকে রেস্তোরাঁ থেকে বাহিরের কেনা খাবারের উপর নির্ভর করছে। আবার বাধ্য হয়ে কেউ কেউ সিলিন্ডার গ্যাসের উপর নির্ভরশীল হচ্ছে। অথচ প্রতি মাসে প্রত্যেককেই গ্যাসের বিল গুণতে হচ্ছে সমহারেই। কমিউনিটি পুলিশিং অঞ্চল-৬-এর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মোঃ আবদুর রহমান গাজী ও এডভেঞ্চার বয়েজের সাধারণ সম্পাদক জিএম জাহিদ হাসান বলেন, এ ব্যাপারে বাখরাবাদ গ্যাস অফিসে যোগাযোগ করেও কোনো প্রতিকার পাচ্ছেন না। এবারসহ আমরা এ পর্যন্ত তিনবার লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। জনদুর্ভোগের এ বিষয়টি নিয়ে জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় আলোচনা উঠলে বাখরাবাদ গ্যাস কর্তৃপক্ষ সহসাই গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক হবে বলে জানালেও তা আজও সমাধান হয়নি বলে অভিযোগ করেন এলাকাবাসী। দুর্ভোগ নিরসনে গ্রাহকরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা কামনা করেছেন। চাঁদপুর সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ নাসিম উদ্দিন বলেন, আমরা শুনেছি গ্যাস অফিসে অনেক নারী-পুরুষ অবস্থান নিয়েছে । বিষয়টি যাতে অন্যদিকে মোড় না নেয় সে জন্যই আমরা ফোর্স পাঠিয়ে তাদেরকে শান্ত করেছি। চাঁদপুরের সেলস্ ম্যানেজার মুহিবুর রহমান রতন আগামী রোববারের মধ্যে গ্যাস লাইন সংস্কার করবেন বলে সকলকে আশ্বস্ত করেন।

মোঃ- মুছা তপদার :– চাঁদপুর পৌরসভার ১৫নং ওয়ার্ড চেয়ারম্যানঘাটা জিটি রোড ও তরপুরচণ্ডী এলাকায় গ্যাস সরবরাহে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গ্যাসের সরবরাহ অনিয়মিত হওয়ায় গ্রাহকদের দুর্ভোগ চরমে উঠেছে। নিয়মিত গ্যাস সরবরাহের দাবিতে ওই সকল এলাকার নারী-পুরুষ গ্যাস অফিসে অবস্থান নেন। এক পর্যায়ে তারা গ্যাস অফিসের সামনে বিক্ষোভ করতে থাকেন। পরে চাঁদপুর সদর মডেল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিবেশ শান্ত করেন এবং আগামী রোববারের মধ্যে গ্যাস অফিসের এরিয়া ম্যানেজার গ্যাস লাইন সংস্কার করবেন বলে সকলকে আশ্বস্ত করেন।

স্থানীয় একাধিক নারীরা জানান, গত কয়েকমাস যাবত চেয়ারম্যানঘাটা, জিটি রোড থেকে তরপুরচণ্ডীর সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান রফিক সর্দারের বাড়ি পর্যন্ত এলাকায় দিনের বেশিরভাগ সময় গ্যাস থাকে না। অধিকাংশ সময় সকাল ৭টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এ এলাকায় গ্যাস থাকে না। আবার মাঝে মাঝে গ্যাস থাকলেও তার পরিমাণ থাকে খুবই কম, যা দিয়ে রান্নার কাজ করা সম্ভব হয় না। এ অবস্থায় স্থানীয় কিছু মানুষ লাকড়ির চুলায় নির্ভরশীল হয়ে পড়লেও বিপাকে পড়ছেন বহুতল ভবনে বসবাসকারীরা। কারণ ভবন বাসায় মাটির চুলা ব্যবহার করা অসুবিধাজনক। নিরূপায় হয়ে অনেকে রেস্তোরাঁ থেকে বাহিরের কেনা খাবারের উপর নির্ভর করছে। আবার বাধ্য হয়ে কেউ কেউ সিলিন্ডার গ্যাসের উপর নির্ভরশীল হচ্ছে। অথচ প্রতি মাসে প্রত্যেককেই গ্যাসের বিল গুণতে হচ্ছে সমহারেই।
কমিউনিটি পুলিশিং অঞ্চল-৬-এর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মোঃ আবদুর রহমান গাজী ও এডভেঞ্চার বয়েজের সাধারণ সম্পাদক জিএম জাহিদ হাসান বলেন, এ ব্যাপারে বাখরাবাদ গ্যাস অফিসে যোগাযোগ করেও কোনো প্রতিকার পাচ্ছেন না। এবারসহ আমরা এ পর্যন্ত তিনবার লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।

জনদুর্ভোগের এ বিষয়টি নিয়ে জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় আলোচনা উঠলে বাখরাবাদ গ্যাস কর্তৃপক্ষ সহসাই গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক হবে বলে জানালেও তা আজও সমাধান হয়নি বলে অভিযোগ করেন এলাকাবাসী। দুর্ভোগ নিরসনে গ্রাহকরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

চাঁদপুর সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ নাসিম উদ্দিন বলেন, আমরা শুনেছি গ্যাস অফিসে অনেক নারী-পুরুষ অবস্থান নিয়েছে । বিষয়টি যাতে অন্যদিকে মোড় না নেয় সে জন্যই আমরা ফোর্স পাঠিয়ে তাদেরকে শান্ত করেছি।

চাঁদপুরের সেলস্ ম্যানেজার মুহিবুর রহমান রতন আগামী রোববারের মধ্যে গ্যাস লাইন সংস্কার করবেন বলে সকলকে আশ্বস্ত করেন।