পল্লীতে অবৈধভাবে ড্রেজিং মেশিনে বালু উত্তোলন

রায়পুর প্রতিনিধিঃ লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে গত এক মাস থেকে দলীয় পরিচয়ে পল্লীতে ড্রেজিং মেশিনে বালু উত্তোলন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার ৮নং উত্তর দক্ষিণ চরবংশী ইউনিয়ন উত্তর আবাবিল ইউনিয়ন, চরমোহনাসহ কয়েকটি ইউনিয়নে দিনের পর দিন স্থানীয় তৌহশিলদারদের সাথে দফারফা করে এ বালু উত্তোলন ও বিক্রি করছেন তারা।

স্থানীয়রা এ বিষয়ে একাধিকবার উপজেলা প্রশাসনও পুলিশ প্রশাসনকে জানিয়ে কোন সমাধান হচ্ছেনা। বালু উত্তোলনের ফলে স্থানীয়দের বাড়ি ঘর ফসলি জমি হুমকির মুখে পড়েছে। দিন রাত মেশিনের শব্দে পরিবেশ হয়ে উঠছে দূষিত। সূত্রে জানাযায়, দক্ষিণ চরবংশী ইউনিয়নে ৩টি মেশিন মফিজ সরকার, ২টি মেশিনে আলমগীর বেপারী, ১টি মেশিনে হাশেম চৌকিদার। উত্তর চরবংশী ইউনিয়নে ২টি মেশিনে বিল্লাল কবিরাজ, ৩টি মেশিনে সাবেক মেম্বার মোঃ আলী খাঁ, মিজান বেপারী ৩টি মেশিন, ১টি মেশিন কাজল, সহেল ১টি মেশিন, আলামিন ছৈয়াল ২টি মেশিনে দিনরাত বালু উত্তোলন করে চলছে।

সাবেক এসিল্যান্ড মোহতাসেম বিল্লাহ কয়েকটি অভিযান পরিচালনা করে মেশিনগুলো বিনষ্ট করলেও পরবর্তীতে তৌহসিলদার, ও ফাঁড়ি থানার পুলিশের সাথে ম্যানেজ করে তারা নতুন চুক্তিতে অবৈধভাবে সরকারী ও বেসরকারী জায়গা থেকে বালু তুলছেন। সরেজমিনে গেলে সোমবার এ ড্রেজার মেশিন গুলো চলতে দেখা যায়। অভিযুক্তদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা প্রশাসন ম্যানেজের কথা স্বীকার করে বলেন, তাদের সাথে মৌখিক ও মাসিক প্রতি মেশিনে ৫হাজার টাকা চুক্তি করে ড্রেজিং মেশিন চালাচ্ছি। আমাদের কোন ভয় নাই। অভিযান আসলে তৌহসিলদার এবং পুলিশ আমাদের ফোন করে জানিয়ে দেয়।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাবরীন চৌধুরীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন অবৈধ ড্রেজিং মেশিনের বিরুদ্ধে খোঁজ খবর নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।