পুলিশের বিশেষ অভিযানে তানোর থানায় ৬ মাদক ব্যাবসায়ী ও ২ মাদকসেবীসহ আটক ৮

রুহুল আমীন খন্দকার, ব্যুরো প্রধান :রাজশাহীর তানোরে পৃথক পৃথক ভাবে অভিযান চালিয়ে ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৯ইং ৬ মাদক ব্যাবসায়ী ও ২ মাদক সেবীসহ ৮ জনকে আটক করেন থানা পুলিশ। এই মাদক ব্যাবসায়ীদের কাছে থেকে গাঁজা ও হেরোইন উদ্ধার করা হয়েছে।

আটক কৃতরা হলেন যথা ক্রমে: মাদক ব্যাবসায়ী আসামী ১। মোঃ শফিকুল ইসলাম (৪৩), পিতা- মৃত: মুসলেম উদ্দীন, গ্রাম- নবনবী, থানা- তানোর, জেলা- রাজশাহী। মামলা নং- ৩৬(১) এর ১৯(ক) মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮, তাকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ২৫ গ্রাম গাজাসহ নবনবী গ্রামের শিমুল তলা সাবেক চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হকের খামার বাড়ি সামনের পাকা রাস্তার ওপর থেকে তানোর থানার এসআই মোঃ মাসুদ করিম সঙ্গীও পুলিশ ফোর্সসহ আটক করেন।

মাদক ব্যাবসায়ী ২। মোঃ জসিম উদ্দিন (২৩) পিতা- মোঃ কাউসার আলী, গ্রাম- মোহাম্মাদপুর, থানা- তানোর, জেলা- রাজশাহী। মামলা নং- ৩৬(১) এর ৮(খ) মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮, তাকে থানার এসআই হামিদুল ইসলাম সঙ্গীও ফোর্সসহ তানোর থানাধীন মোহাম্মদপুর বাজারের মোঃ আইনাল হকের মুদিখানা দোকানের সামনে থেকে শুক্রবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে ৮ গ্রাম হেরোইনসহ আটক করেন।

মাদক ব্যাবসায়ী ৩। মোঃ গোলাম রাব্বানী (৩৬), পিতা- মৃত: কুবা সরদার, গ্রাম- রাতৈল (নিছুনপুর), ৪। মোঃ সুমন আলী (২৫), পিতা- মৃত: শামসুদ্দিন গ্রাম- বেলঘড়িয়া, ৫। মোঃ আমিনুল ইসলাম (৩৬), পিতা- মৃত: মকসেদ আলী, গ্রাম- বেলঘড়িয়া, ৬। মোঃ জহুরুল ইসলাম (২৫), পিতা মৃত: জনাব আলী, গ্রাম- রাতৈল (আদিবাসী পাড়া) সর্ব থানা- তানোর, জেলা- রাজশাহী। মামলা নং- ৩৬(১) এর ৮(খ),৩৬(১) এর ১৯(ক)/৪১ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮, তাদের ৪ জনকে থানার এসআই মোঃ সানোয়ার হোসেন সঙ্গীও পুলিশ ফোর্সসহ তানোর থানাধীন বেলঘড়িয়া গ্রামের আসামী গোলাম রাব্বানীর বসত নাড়ির সামনে থেকে বৃহস্পতিবার রাত্রি সাড়ে ১১টার দিকে ১১ গ্রাম হেরোইন, ৩০ গ্রাম গাঁজা ও মাদক বিক্রয়ের ২৯০০/- টাকাসহ আটক করেন।

অপর দিকে আটক ২মাদক সেবীরা হলেন যথা ক্রমে: ১। মোঃ মাহাবুব @ টুকু (৩৫), পিতা- মৃত: মিয়াজান মন্ডল, গ্রাম- গোল্লাপাড়া, ২। মোঃ কামাল উদ্দিন (৩৮), পিতা- ঘুমানু মোল্লা, গ্রাম- কৃষ্ণপুর, উভয়ের থানা- তানোর, জেলা- রাজশাহী। মামলা নং- ৩৬(৫) মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮, তাদের ২ জনকে থানার এসআই হামিদুল ইসলাম সঙ্গীও পুলিশ ফোর্সসহ তানোর থানাধীন কৃষ্ণপুর বাইতুল আমান মাদ্রাসার সামনে থেকে বৃহস্পতিবার রাত্রি সাড়ে ৯টার দিকে এ্যালকোহল জাতীয় পানিও মাদক দ্রব্য পান করে জনসাধারণের শান্তি বিনষ্টসহ বিরক্ত সৃষ্টি করার অপরাধে তাদের আটক করেন।

আটককৃত ৮ জনের গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে তানোর থানার তদন্ত ওসি রাকিবুল হাসান বলেন, আমাদের সুযোগ্য অফিসার ইনচার্জ ওসি খায়রুল ইসলাম স্যারের দিক নির্দেশনায় ও তিনার সঠিক পরামর্শের ভিত্তিতে আসামীদের আটক করা সম্ভব হয়েছে। তিনি আরো বলেন, মাদকের ব্যাপারে ইতি পূর্বেই আমরা থানা পুলিশের পক্ষ থেকে জিরো ট্রলারেন্স ঘোষণা করেছি। মাদক নির্মূলে পুলিশের পক্ষ থেকে বরাবরের মতোই কঠোর অবস্থানে রয়েছি মাদকের ব্যাপারে কোন প্রকার ছাড় নেই বলেও তিনি এ প্রতিবেদকদের জানান।

এ বিষয়ে তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি খায়রুল ইসলাম বলেন, বৃহস্পতিবার ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৯ইং পৃথক ৪টি অভিযানে ৬ মাদক ব্যাবসায়ী ও ২ মাদকসেবীসহ মোট ৮ জনকে আটক করা হয়। আটক কৃত: ৮ জন আসামীকে শুক্রবার বেলা সাড়ে ১০টার দিকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, দেশ ও জাতির কল্যাণার্থে সর্ব প্রকার বে-আইনী কর্মকাণ্ডকে রুখে দেবার জন্য আমাদের পুলিশের অভিযান চলমা রয়েছে। পাশাপাশি গোপনে ও প্রকাশ্যে আমাদের থানা পুলিশের পক্ষ থেকে গোয়েন্দা নজরদারি অব্যহত আছে এবং থাকবে।