পুলিশের বিশেষ অভিযানে রাজশাহীর তানোরে মাদক উদ্ধারসহ বিভিন্ন মামলায় গ্রেফতার ১৮

রুহুল আমীন খন্দকার, ব্যুরো প্রধান : বুধবার ১৬ জানুয়ারি ২০২০ তারিখে রাজশাহী জেলার পুলিশ সুপার মোঃ শহিদুল্লাহ বিপিএম, পিপিএম ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মাহমুদুল হাসান, মোঃ মতিউর রহমান সিদ্দিকি এবং সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার গোদাগাড়ী সার্কেল মোঃ আব্দুর রাজ্জাক খাঁনের যৌথ নির্দেশনায় এক বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা হয়। 

তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ রাকিবুল হাসান, এর নেতৃত্বে তানোর থানার বিভিন্ন এলাকাজুড়ে পৃথক পৃথক ভাবে অভিযান পরিচালনা করে ১৮ জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন থানা পুলিশ। অভিযান পরিচালনা কারী অফিসারগন ও গ্রেফতারকৃত আসামিরা হলেন যথাক্রমে,

প্রথম অভিযানে : এসআই (নিঃ) মোঃ মাসুদ করিম সঙ্গীয় অফিসার ও পুলিশ ফোর্সসহ, আসামী ১। হেকমত আলী (৪২), পিতা- মৃত: খেজের আলী সাং- গোপালপুর, থানা- মোহনপুর, ২। মোঃ মোজ্জামেল হক (৪২), পিতা- মৃত: ফয়েজ উদ্দিন মন্ডল সাং- মদনহাটি, থানা- পবা, উভয়ের জেলা- রাজশাহীদ্বয়কে চোলাইমদ সেবন করার অপরাধে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন।

দ্বিতীয় অভিযানে : এসআই (নিঃ) মোঃ গোলাম মোস্তফা সঙ্গীয় অফিসার ও পুলিশ ফোর্সসহ আসামী ১। মোঃ আব্দুল হামিদ (৩৮), পিতা- মোঃ আঃ ওয়াহেদ, মাতা- মোছাঃ মর্জিনা সাং- কালনা (পূবর্পাড়া) , থানা- তানোর, ২। মোঃ ইসরাইল (৩২), পিতা- মৃত: খলিল মন্ডল, মাতা- মোছাঃ মোনোয়ারা সাং- তানোর উপরপাড়া, থানা- তানোর, উভয়ের জেলা- রাজশাহীদ্বয়কে চোলাইমদ সেবন করার অপরাধে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হন।

তৃতীয় অভিযানে, এসআই (নিঃ) মোঃ সানোয়ার হোসেন সঙ্গীয় অফিসার ও পুলিশ ফোর্সসহ আসামী ১। সুখ মোহাম্মদ (৩০), পিতা- মোঃ শওকত আলী সাং- মির্জাপুর, থানা- গোদাগাড়ী, জেলা- রাজশাহীকে চোলাইমদ সেবন করার অপরাধে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন।

চতুর্থ অভিযানে : এসআই (নিঃ) মোঃ ছাইফুল ইসলাম সঙ্গীয় অফিসার ও পুলিশ ফোর্সসহ আসামী ১। মোঃ মাসুদ রানা (৪০), পিতা- মৃত: শামসুদ্দিন সাং- মোহাম্মদপুর (পূবর্পাড়া) , ২। মোঃ সাদিকুল ইসলাম (৫০), পিতা- মোঃ ময়েজ উদ্দিন সাং- মোহাম্মদপুর (পূবর্পাড়া), ৩। মোঃ আব্দুর রাজ্জাক (৪৫), পিতা- মৃত: ইসমত আলী সাং- মোহনপুর, উভয় থানা- তানোর, জেলা- রাজশাহীগণদেরকে চোলাইমদ সেবন করার অপরাধে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন।

পঞ্চম অভিযানে : পুলিশ পরিদর্শক (নিঃ) মোঃ সাইফুল ইসলাম সঙ্গীয় অফিসার ও পুলিশ ফোর্সসহ আসামী ১। মোঃ গোলাম রব্বানী (৪৫), পিতা- মোঃ আনিছুর রহমান সাং- মোহাম্মদপুর (পূর্বপাড়া ), থানা- তানোর, জেলা- রাজশাহী’কে ২০ লিটার দেশীয় তৈরী চোলাইমদসহ গ্রেফতার করতে সক্ষম হন।

ষষ্ঠ অভিযানে : এসআই (নিঃ) মোঃ হামিদুল ইসলাম সঙ্গীয় অফিসার ফোর্সসহ আসামী ১। সেকেন্দার মুর্মু @ সেকেন (৫০), পিতা- মৃত: মেলচা মুর্মু ২। সুনীল টুডু (৩৫), পিতা- মাতলা টুডু স্থায়ী ৩। শ্যামলী মার্ডি (২৫), স্বামী- শ্রী সামুয়েল মুরমু ৪। শ্রীমতি কান্ত হেমরম (৪০), স্বামী- মৃত: মুংলু হাসদা সর্বসাং- কোয়েল (বৈরাগীপাড়া), থানা- তানোর, জেলা- রাজশাহীগণদের ২০ লিটার দেশীয় তৈরী চোলাইমদসহ গ্রেফতার করতে সক্ষম হন।

সপ্তম অভিয়ানে : এসআই (নিঃ) মোঃ রুহুল আমীন সঙ্গীয় অফিসার ও পুলিশ ফোর্সসহ আসামী ১। নমিতা হেমরম (৩০), পিতা- মৃত: রবিন হেমরম সাং- মোহর (সল্লাপাড়া ), থানা- তানোর, জেলা- রাজশাহীকে ১২ লিটার দেশীয় তৈরী চোলাইমদসহ গ্রেফতার করতে সক্ষম হন।

অষ্টম অভিযানে : এএসআই (নিঃ) মোঃ মুকুল হোসেন এএসআই (নিঃ) মোঃ হাফিজুল ইসলাম (২), এএসআই (নিঃ) মোঃ রকিবুল হাসান, এএসআই (নিঃ) মোঃ ইউনুস আলী মোল্লা, এএসআই (নিঃ) হাফিজুল ইসলাম-১ সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্সসহ গ্রেফতারী পরোয়ানাকৃত আসামী ১। আফাজ, পিতা- সবের আালী, সাং- কুঠিপাড়া, ২। মোঃ মিঠোম সরদার, পিতা- মনির সরদার, সাং- সরনজাই চকপাড়া, ৩। শ্রী মহানন্দ সরদার, পিতা- মৃত: সুবল সরদার, ৪। শ্রীমতি অনিতা রানী, পিতা- মৃত: অভিমানা হালদার, উভয় সাং-মাসিন্দা সর্ব থানা- তানোর, জেলা- রাজশাহীগণকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছেন।

এ বিষয়ে তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাকিবুল হাসান বলেন, আমাদের শ্রদ্ধিয় পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মহোদয়গনের সঠিক দিক নির্দেশনায় আমরা তানোর থানা পুলিশের পক্ষ থেকে প্রতিনিয়ত অভিযান পরিচালনা করে আসছি। তার’ই ধারাবাহিকতায় বুধবার দিবাগত রাত্রে এই অভিযান গুলো সফলতার সাথে পরিচালনা করা হয়েছে। সেই সময় তানোর থানার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে মাদকদ্রব্য উদ্ধারসহ বিভিন্ন মামলায় মোট ১৮ জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি। বৃহস্পতিবার ১৬ জানুয়ারি দুপুরের দিকে তাদেরকে পুলিশ হেফাজতে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। তিনি