ফরিদগঞ্জে প্রবাস ফেরতদের খোঁজে উপজেলা প্রশাসন : নিরব স্বাস্থ্য বিভাগ

জাকির হোসেন সৈকত,ফরিদগঞ্জ : বিশ্ব জুড়ে জখন করোনা সংক্রমণ রোধে রেড এলার্ট ঠিক সেই সময়ে বাংলাদেশ করোনা সংক্রমণ দিন দিন বেড়ে চলছে। এমন পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রশাসনের দিক থেকে চলছে ব্যাপক শর্তকতা মূলক কর্মসূচি। সকল কাজের পাশাপাশি সদ্য প্রবাস ফেরত ব্যক্তিদের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা এবং জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্য দিন-রাত নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী বৃন্দ।

তার উল্টো চিত্র স্বাস্থ্য বিভাগের, সময় মতন হাসপাতালে না আসার কারনে ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে সাধারন রোগীদের। সকাল ৯ ঘটিকায় হাসপাতালে থাকার কথা থাকলেও থাকেন ১১ঘটিকার সময়। সরকারী কোন নিয়মনীতি কে তোয়াক্কা না করে চলছে মনগড়া কার্যক্রম। সর্দি কাশি ও জ¦রের রোগী দেখলে স্পশ করতে না রাজ ডাক্তার ও নার্স এমটি চিত্র ফরিদগঞ্জ উপজেলায় স্বাস্থ্য বিভাগের।

এদিকে ফরিদগঞ্জ উপজেলাকে করোনার ভয়াল থাবা থেকে রক্ষা করার কাজ করে যাচ্ছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিউলী হরি। দেশ ও মানুষের কল্যাণে নিবেদিত প্রাণ হয়ে কাজ করে যাচ্চেন তিনি। পাশে নেই উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।
গত কয়েকদিনে দেখাযায় উপজেলার চান্দ্রা,বালিথুবা, গাজীপুর, খাজুরিয়া, বড়ালী পৌর এলাকার থেকে শুরু করে বিভিন্ন ইউনিয়নে গিয়ে প্রবাস ফেরত লোকদের নিজ হোম কোয়ারেন্টাইন থাকার নির্দেশ প্রদান করেন। এসময় তিনি তাদের কে সর্তক থাকার পরামর্শ দেন। পাশাপাশি তিনি বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অতিরিক্ত দামে পণ্য বিক্রয় ও কৃত্রিম সংকট সৃষ্টিকারী ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) শারমিন আক্তারকে ভিবিন্ন বাজারে ব্যবসায়ীদের সর্তক ও পন্য দ্রব্যের দাম সঠিক রাখার ব্যাপারে সচেতন করা ও প্রয়োজন হলে ভ্রাম্যমাণ আদালত করার নির্দেশ প্রদান করেন। তার আলোকে চলছে বিভিন্ন বাজার মনিটরিং,চলছে মোবাইল কোর্ড, হচ্ছে ভিবিন্ন ব্যবসায়ীদের জরিমানা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিউলী হরি জানান, সদ্য যারা প্রবাস থেকে দেশে এসেছেন তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা গ্রহণ এবং ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এ আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে তা মধ্যে আইন অমান্যকারী একজনকে মোবাইল কোর্ড আওয়াতায় নিয়ে এসেছি। দেশ ও জনকল্যাণে সবাইকে এ আর্দেশ মেনে চলতে হবে। এছাড়া করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির সুযোগে পণ্যমূল্য বৃদ্ধি এবং কৃত্রিম সংকট সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের নজরদারি রয়েছে।

জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। এসময় তিনি আরো জানান, কঠিন এ পরিস্থিতিতে প্রতিটি নাগরিককে দেশ ও মানুষের কল্যাণে সচেতন ভূমিকা পালন করারও আহ্বান জানান। পাশাপাশি যে কোনো জমায়েত বা সামাজিক অনুষ্ঠান থেকে বিরত থাকার জন্য সবাইকে অনুরোধ জানান। এসময় সকলকে নিজ নিজ স্থান থেকে সর্তক থেকে করোনা মোকাবেলায় কাজ করার আহ্বান জানান। আমরা প্রত্যাকে নিজেদের সুরক্ষা জন্য কাজ করলে করনা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্বাব।