ফরিদগঞ্জে মাদক ও প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে যুবককে কুপিয়ে জখম

আমান উল্যা আমান: মাদক ও প্রভাব বিস্তারে যুবককে কুপিয়ে জখম, ঢামেকে ভর্তি মাদক ও প্রভাব বিস্তারের জেরে প্রতিপক্ষের হামলা গুরুতর আহত হয়েছেন মো. হুমায়ুন নামে এক যুবক। গুরুতর হুমায়ুনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (ঢামেক) পাঠানো হয়েছে। শনিবার (৪ জুলাই) দুপুরে চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে আলোনিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহত মো. হুমায়ুনের (২০) বড়ভাই মামুন হোসেন দাবি করেন, এলাকার রুহুল আমিনের ছেলে রুবেল, জুয়েল এবং মোস্তফা কামালের ছেলে কাদেরসহ কয়েকজনের সঙ্গে গত এক মাস আগে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে আমার ভাইয়ের মারামারি হয়। এ ঘটনায় ফরিদগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগও দায়ের করা হয়েছিল।

আরও পড়ুন: নওগাঁয় কলেজছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা, প্রেমিকের বিরুদ্ধে মামলা শনিবার দুপুরে (ভাই) মো. হুমায়ুনকে একা পেয়ে তারা কয়েকজন মিলে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্মক আহত করে। আশপাশের লোকজন এগিয়ে না আসলে তারা হুমায়ুনকে তারা মেরেই ফেলতো বলে অভিযোগ করেন মামুন হোসেন।

আহত মো. হুমায়ুনকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়।। পরে চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি দেখা দিয়ে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সুজাউদৌলা রুবেল জানান, আহত যুবকের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের একাধিক আঘাত রয়েছে। এতে তার শরীর থেকে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়েছে। তাই অবস্থার অবনতি ঘটায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ ঘটনা নিয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বাসির বলেন, উঠতি বয়সের যুবকদের মধ্যে বিবাদমান দুটি পক্ষ রয়েছে। তাদের মধ্যে বিরোধকে কেন্দ্র করে কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে। তবে চেয়ারম্যান স্বীকার করেন, মাদকসহ অসামাজিক কাজের জের ধরে মূলত এ ঘটনা ঘটে।

শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত এ ঘটনায় থানায় কোনো অভিযোগ হয়নি বলে জানিয়েছেন ফরিদগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) সহিদুল ইসলাম।