ফরিদগঞ্জে সমাজিক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে দর্পণ সংগঠন

জাকির হোসেন সৈকত: ফরিদগঞ্জঃ ফরিদগঞ্জের হত দরিদ্র ও নিন্ম আয়ের মানুষের আশার প্রদীপ হিসেবে কাজ করছে সামাজিক সেচ্ছাসেবী সংগঠন দর্পণ। 

‘সর্বদাই আপনাদের পাশে’- এই ¯স্লোগানকে সামনে রেখে গত ৮ এপ্রিল প্রতিষ্ঠানটির আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করেন।  উপজেলার ৯নং গোবিন্দপুর ইউনিয়নের নয়াহাট বাজারে সংগঠনটি পরিচালিত হচ্ছে।

প্রবাসীদের অর্থায়নে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর পাশাপাশি মাদক নির্মূল কাজ করছে সংগঠনটির সদস্যরা। 

 চারিদিকে যখন করোনা বিপর্যের ফলে ঘরবন্দী মানুষ। ঠিক সে সময় মানুষের পাশে দাঁড়াবে বলে দৃঢ় শপথ নিয়ে যে পথ চলা শুরু করেছিল সংঠনটি। সে ধারাবাহিকতা অনুসারে সাধারন মানুষের মাঝে হ্যান্ডওয়াশ, হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ ও তিনশতাধিকেরও বেশি পরিবারের মাঝে পৌঁছে দিয়েছেন ত্রাণ সামগ্রী। 

করোনা পরিস্থিতির কারনে স্থানীয় বাজারগুলোতে যখন নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য অধিক মূল্যে বিক্রি করা হচ্ছিল। ঠিক সে সময় সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে বাজারের অতিরিক্ত মূল্যে পণ্য বিক্রির প্রথাকে বৃদ্ধাআঙ্গুল দেখিয়ে ন্যায্য মূল্যে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস বিক্রয় করেছিল সংগঠটি।

সে ধারাবাহিকতায় বর্তমানেও সংগঠনটির নিয়ন্ত্রাধীন ‘সততা স্টোর’ নামে নয়ারহাট বাজারে একটি নির্দিষ্ট দোকান রয়েছে। বেশ কয়েকদিন ধরে সংগঠনটি ন্যায্য মূল্যে পণ্য বিক্রির এ ধারা অব্যহত থাকায়।  বাজারের অন্যান্য ব্যবসায়ীদের অধিক মুল্যে পণ্য বিক্রির প্রবণতা থেকে অনেকাংশেই বেরিয়ে এসেছে। 

করোনার প্রকোপ মুহুর্ত চলাকালীন সময়ে পবিত্র ঈদুল ফিতরের পূর্বমহুর্তে সংগঠনটির পক্ষ থেকে ১৫০ টি পরিবারকে পৌঁছে দিয়েছে ঈদ উপহার সামগ্রি। আসন্ন ঈদুল আযহাকে কেন্দ্র করে নিম্নবিত্তদ্দের পাশাপাশি মধ্যবিত্তদের সাথে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করতে সংগঠনের পক্ষ থেকে একটি গরু ক্রয় করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংগঠনের সদস্যরা।  সেই গরুটি জবাই করে মাংস পৌঁছে দেওয়া হবে মধ্য আয়ের মানুষের মাঝে। যারা আর্থিক সংকটের কারণে কোরবানি দিতে পারেনি।

শুধু মাত্র অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোই সীমাবদ্ধ নয়।  স্থানীয় যুবকদের মাদকের করাল গ্রাস থেকে রক্ষা করতে সংগঠনের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে বিভিন্ন উদ্যোগ। তার মধ্যে একটি হল, নির্দিষ্ট মেয়াদে একটি মাঠ লিজ নিয়ে সেখানে আয়োজন করা হবে বিভিন্ন খেলা। বার্ষিক কর্ম-পরিকল্পনা হিসেবে প্রতিবছর একটি ক্রিকেট টুনামেন্ট একটি ফুটবল টুনামেন্ট একটি কাবাডি টুনামেন্ট আয়োজন করবেন বলে জানিয়েছেন  সংগঠনের পরিচালক বৃন্দ।

সামাজিক ও সেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘দর্পণ’ ব্যতিক্রমী এমন কার্যক্রমকে সাধুবাদ জানিয়েছে স্থানীয় সুশীল সমাজ। 

এ বিষয়ে স্থানীয় জানান, বর্তমান নিঃস্বার্থ ভাবে  মানুষের পাশে দাড়ানো অনেকাংশই চ্যালেঞ্জিং। সেখানে দর্পণ’র সদস্যরা নিজের খেয়ে বনের মহিশ তাড়ানোর মতো যে উদার মনমানসিকতা নিয়ে সমাজের মানুষদের পাশে দাঁড়িছে। তা সত্যিই প্রসংশনীয়,সমাজের উচ্চবিত্ত মানুষদের উচিত ওদের পাশে দাড়িয়ে ওদের কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করা। 

এ বিষয়ে সংগঠন পরিচালক শওকত করীম জানান, অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর পাশাপাশি আগামী দিনগুলোতে সমাজের সকল প্রকার ভালো কাজের সাথে থেকে অপসাংস্কতিকে বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকবো। 

সংগঠনটির প্রতিষ্ঠার পর থেকে এই পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়া প্রবাসি মসিউর রহমান তুহিন সহ বেশ কয়েকজন প্রবাসী ও স্থানীয়দের অর্থায়নে নিঃস্বার্থ ভাবে সংগঠনটির কার্যক্রম পরিচালনা করছেন, শওকত করিম, ইসমাইল হোসেন, সিদ্দিকুর রহমান রানা সহ আরো সংগঠনটির ৩০ জন সদস্য ।