ফরিদগঞ্জে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িতে আগুন, জেলা প্রশাসনের ঘটনাস্থল পরিদর্শন

আমান উল্যা আমান‌ || চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে গুপ্টি কর্মকার বাড়িতে বিরেশ্বরের পরিত্যাক্ত বসত ঘরে আগুন দিয়েছে দুবৃর্ত্তরা। ঘটনাটি ঘটে ১৯ অক্টোবর (মঙ্গলবার) রাত উপজেলার গুপ্টি গ্রামে।


প্রত্যক্ষদর্শী উত্তম কুমার প্রতিবেদকে জানান, আগুনে পুড়ে যাওয়া ঘরের লোকজন চাঁদপুর কামার শীল্পের কাজ করছে। বাড়িতে কেউ ছিল না। ঘরটি তালা বদ্ধ অবস্থায় ছিল। স্থানীয় ৫নং গুপ্টি পূর্ব ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল গণি বাবুল পাটওয়ারী জানান, কর্মকার বাড়ির বিরেশের পরিত্যাক্ত তালা বদ্ধ একটি ঘর আগুন লেগে পুড়ে ছাই হয়ে যায়। তিনি আরোও জানান, মন্দির অনেক দূরে কিভাবে আগুনের সূত্রপাত হলো বলা যাচ্ছেনা। তবে ফায়ার সার্ভিস এসে দেখার পর তদন্ত সাপেক্ষে বলা যাবে। ওই ঘরের মালিক চাঁদপুরে কর্মকারের কাজ করেন ও সেখানেই থাকেন।


এ বিষয়ে ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শহিদ হোসেন জানান, আগুনের সূত্রপাতের বিষয়টি এখনই বলা যাচ্ছেনা। ফায়র সার্ভিস ও বিদ্যুত বিভাগ আগুনের সূত্রপাতের বিষয়টি নিশ্চিত করার পর তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন, চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিস, জেলা পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ পিপিএম বার, ইউপি চেয়ারম্যান, হিন্দু কমিউনিটির লোকজন।


এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা যাচ্ছে বিদ্যুতের সটসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে। ইউএনও, ইউপি চেয়ারম্যান, ফায়ার সার্ভি, বিদ্যুৎ অফিস ও হিন্দু কমিউনিটির একজনকে নিয়ে একটি তদন্ত কমিটি করে দিয়েছি। তদন্ত কমিটি ৭২ ঘন্টার মধ্যে রিপোর্ট পেশ করার কথা। রিপোর্টের প্রেক্ষিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।