ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৬ শয্যা বিশিষ্ট আইসোলেশন ইউনিট প্রস্তুত

মোঃ আল-আমিনঃ জাতীয় দুর্যোগ করোনাভাইরাস সারাবিশ্বে মহামারী আকারে ধারন করেছে। সারা বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশেও করোনা ভাইরাস নামক আতংক ছড়িয়ে পড়েছে। তাই চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে করোনাভাইরাসের প্রতিরোধের লক্ষে অন্যান্য উপজেলার ন্যায় ফরিদগঞ্জ উপজেলা সদরে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট উপজেলা স্যাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা রোগীদের জন্য ৬ শয্যা বিশিষ্ট আইসোলেশনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

করোনা ভাইরাসের বিষয় সম্পর্কে জানতে গেলে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলেশনের বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত মেডিকেল অফিসার (সহকারী সার্জন) ডাঃ মোঃ কামরুল হাছান জানান, করোনা ভাইরাস একটি আতংকের নাম। তাই আপনারা যারা বাড়িতে আছেন তারা বিনা প্রয়জনে ঘর থেকে বাহির হবেননা।

এবং যদিও ঘর থেকে প্রয়জনে বাহির হন তাহলে অবশ্যই মাক্স পড়ে বের হবেন। আর যেখানে সেখানে হাঁচি-কাশি দিবেননা। আর হাঁচি-কাশি দেওয়ার সময় অবশ্যই রুমাল বা টিস্যু ব্যবহার করবেন।এবং জ্বর শর্দি কাশি হলে নিকটস্থ কমিউনিটি ক্লিনিকে বা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগাযোগ করবেন। বিদেশ ফেরত ভাইদের কে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনারা যারা বিদেশ থেকে দেশে ফিরেছেন তারা দয়া করে ১৪ দিন কারো সংস্পর্শে যাবেননা ।

এ ১৪ দিন হোম কোয়ারান্টাইনে থাকবেন। আর যদি কেউ মনে করেন যে আপনি আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা আছেন তাহলে উপজেলা স্যাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগাযোগ করবেন। আমাদের আইসোলেশনের সমস্থ ব্যবস্থা রয়েছে। এবং এও বলেন আপনারা সব সময় ভালভাবে সাবান বা হ্যানওয়াস দিয়ে ঘন ঘন হাত ধৌত করবেন ও কুসুম গরম পানি পান করবেন। প্রয়োজনে আমাদের সাথে যোগযোগ করবেন। ডাঃ মোঃ কামরুল হাছান মেডিকেল অফিসার (সহকারী সার্জন ) ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স