বইমেলায় বাচ্চারা হয়ে ওঠছে ‘ফায়ার ম্যান’

মাহফুজুর রহমান: বইমেলায় ফায়ার সার্ভিসের কিসের দোকান থাকতে পারে? এমন প্রশ্ন হয়তো সবার মনে জাগতে পারে। মেলার একেবারে প্রান্তিক কর্ণারে গেলে দেখা মিলবে তাদের ‘থ্রিডি ফায়ার সিমুলেশন এন্ড স্টল’টি।

স্টলের সামনে কোন বাচ্চা দেখলেই তারা ছুটে গিয়ে নিয়ে আসছেন গেইমস খেলানোর কথা বলে। এই গেইমস কেমন গেইমস? ভিতরে গিয়ে স্বচক্ষে প্রত্যক্ষ না করলে বুঝা যাবে না। গেইমসের আদলে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে বাচ্চা সহ তাদের অভিভাবকদের। আগুন,ভূমিকম্প থেকে বাঁচতে স্টলে সংরক্ষিত বইগুলোতে আছে বিভিন্ন চিত্র প্রদর্শিত জীবন বাঁচানোর নানান কৌশল এবং দিকনির্দেশনা।

স্পাইডার ম্যান কিংবা সুপার ম্যান নয় খেলার ছলে বইমেলায় এবার বাচ্চারা একেকজন হয়ে ওঠছে ‘ফায়ার ম্যান’। এতে আনন্দের সাথে তারা রপ্ত করছে বাস্তব জীবনে আপদকালীন কার্যকরী সব অভিজ্ঞতা।

সম্প্রতি বইমেলা ঘুরে ব্যতীক্রমী এমন দৃশ্য দেখা গেছে। এ প্রসঙ্গে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মকর্তা শহীদুল ইসলাম সুমন বিডি কারেন্ট নিউজ২৪’কে জানান, ‘পৃথিবীর প্রত্যেকটা ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনার সূত্রপাত হয় ছোট থেকেই। শুধুমাত্র জনসচেতনতার অভাবে ছোট্ট আগুন ভয়াবহ রুপ ধারণ করতে সক্ষম হয়’।

‘চুরিহাট্টা, এফ.আর টাওয়ার সহ সম্প্রতি সময়ে দেশের বিভিন্ন জায়গায় অনেক বড় ধরনের অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে অনেক মানুষের প্রাণ ও সম্পদের বিপর্যয় ঘটেছে। মুজিবর্ষে উপলক্ষ্যে এবারে ‘নিরাপদ বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার’ নিয়েই আমাদের এ উদ্যোগ।’

তিনি আরও জানান, এক গবেষনায় দেখা গেছে, দেশের অধিকাংশ অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত গ্যাসের চুলা থেকেই ঘটে। আমরা আমাদের কাজের তাগিদে বেশিরভাগ সময় বাসার বাহিরে অবস্থান করি তাই বিশেষ করে মহিলা ও শিশুদের প্রাধান্য দিয়ে আমরা এ প্রশিক্ষণ দিচ্ছি।

‘একটা মনিটরে থ্রিডি অ্যানিমেশনের মাধ্যমে আগুন ধরার পর আমরা অগ্নি-নির্বাপক যন্ত্রের ব্যবহার হাতে কলমে দেখানোর চেষ্ঠা করেছি।’ গেইমসের আদলে বিষয়টি উপস্থাপিত হওয়ায় বাচ্চারা বিষয়টি দারুণভাবে উপভোগ করছে এবং তাদের মধ্যে ধীরে ধীরে বীজ বুনছে সচেতনতার। এছাড়াও আমরা বইগুলোতে পুড়ে যাওয়ার পর ফার্স্ট এইডের সঠিক ব্যবহার সহ গেইমসের আদলে অ্যাপসের মাধ্যমে বিভিন্ন কৌশল শিখানোর চেষ্ঠা করেছি।’

দেশের বৃহৎ জনগণের জানমালের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করেই মুজিববর্ষে এবারের বইমেলায় ব্যতীক্রমী এমন আয়োজন করেছে দেশের অতন্দ্র প্রহরী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স। তাদের এমন উদ্যেগে সর্বমহল প্রশংসা ছড়াচ্ছেন । প্রাণ ও প্রকৃতির নিরাপত্তায় জীবনের সকল বাধন খুঁলে দিনরাত এভাবেই নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছেন ‘লাইফ সেভিং ফোর্সের সদস্যরা’।

পুরো বিষয়টি বিস্তারিত দেখতে ও জানতে ক্লিক করুন