১৯৫২ সাল আজকের বাংলাদেশ তখন পূর্ব পাকিস্তান

নিওজ ডেস্ক:- এ সময় পূর্ব এবং পশ্চিম পাকিস্তান একই রাষ্ট্র হলেও, ভাষা এবং সংস্কৃতির কারণে রাষ্ট্রের বৈশিষ্ট্য ছিল ভিন্ন ৷ কিন্তু পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠী জোর করে বাঙ্গালীদের উপর চাপিয়ে দিয়েছিল উর্দু ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে ৷ বাঙ্গালীদের মায়ের ভাষা বাংলার উপর এই ধরনের পাকিস্তানি আগ্রাসন মেনে নেয়নি সে দিনের বাংলার দামাল ছেলেরা ৷ মায়ের ভাষা রক্ষার দাবিতে ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সবাই প্রতিবাদী হয়ে নেমে পড়ে রাস্তায় ৷ মিছিলে মিছিলে ফুসে ওঠে ঢাকার রাজপথ ৷

১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারিতে পাকিস্তানি শাসকরা সেই আন্দোলনকে মেনে নিতে পারেনি, তারা ভাষার জন্য আন্দোলনরত ছাত্র জনতার ওপর লেলিয়ে দেয় তাদের পেটোয়া পুলিশ বাহিনী ৷ পুলিশের গুলিতে রাজপথে নিহত হন সালাম, রফিক, বরকত, জব্বার ৷ তাদের অপরাধ ছিলো তারা তাদের মাতৃভাষা বাংলাকে ভালোবেসেছিল ৷ পৃথিবীর আর সবার মতো তারা চেয়েছিল মাতৃভাষা বাংলায় কথা বলতে ৷

কিন্তু শাসকশ্রেণী চায়নি তাদের রাজ্যে বাংলা ভাষার ব্যবহার চলুক, বাঙালিরা বাংলায় কথা বলুক ৷ যদিও তারা জানতো ১৯১৩ সালে বাংলায় কবিতা লিখে বাঙালি কবি রবিন্দ্রনাথ ঠাকুর সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পেয়ে, বিশ্বের কাছে বাংলা ভাষাকে মর্যাদার আসনে প্রতিষ্ঠিত করেছেন ৷ ১৯৫২ সালে ভাষার জন্য যারা নিজের জীবনকে বাজি রেখে রাজপথে নেমে শহীদ হয়েছেন, তারা বাংলাদেশের ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস এর অমর আত্মা৷ তাঁদের এই আত্মত্যাগের কারণে তৎকালীন পাকিস্তানী জান্তা ভয়ে ভীত হয়ে উর্দুকে বাংলার রাষ্ট্রভাষা করার পরিকল্পনা থেকে সরে দাঁড়ান ৷

আর বাংলা ভাষা ই বাঙ্গালীদের মায়ের ভাষা রাষ্ট্রভাষা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয় ৷ পৃথিবীর ইতিহাসে বাঙালিরাই একমাত্র জাতি যারা মায়ের মুখের ভাষা প্রতিষ্ঠার জন্য আন্দোলন সংগ্রাম করে জীবন দিয়েছেন ৷ সে সময় শহীদের স্মৃতিকে অমর করার জন্য রাতারাতি তৈরি করা হলো শহিদ মিনার, কিন্তু রাতের অন্ধকারে পুলিশের বুটের আঘাতে গুঁড়িয়ে দেয়া হলো সেই মিনার ৷ বাঙালি জাতি তাতেও থেমে থাকেনি ৷ শাসকদের পরাজিত করে ছিনিয়ে আনে বাংলায় কথা বলা ন্যায্য অধিকার ৷ এই মহান আত্ম ত্যাগ সম্মান জানাতেই ১৯৯৯ সালে ১৭ই নভেম্বর ইউনেস্কো একুশে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণা দেয়৷ বর্তমানে পৃথিবীর ১৮৬টি দেশের নাগরিকেরা ২১শে ফেব্রুয়ারিকে আপন মাতৃভাষা রক্ষার জন্য অঙ্গীকারবদ্ধ হয় ৷

আর এই কারণেই ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের সকল গৌরবের অধিকার বাঙালীদের ৷