বিদেশে বসে রাষ্ট্রবিরোধী বক্তব্যে বাতিল হবে পাসপোর্ট

ফাইল ছবি

ডেস্ক রিপোর্ট: বিদেশে বসে রাষ্ট্রবিরোধী কাজ করলে বা রাষ্ট্রবিরোধী কথা বললে তা রাষ্ট্রদ্রোহিতা। এ ধরনের ব্যক্তিদের পাসপোর্ট বাতিল করা হবে বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। তবে ব্যক্তির বিষয়ে বক্তব্য দিলে তা রাষ্ট্রদ্রোহিতা নয় বলেও জানিয়েছেন মন্ত্রী।

বুধবার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আইনশৃঙ্খলা-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির এক বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের এই কথা জানান। মোজাম্মেল হক আইনশৃঙ্খলা-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভাপতি।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী জানান, বিদেশে রাষ্ট্রবিরোধী বক্তব্য দেওয়া বা রাষ্ট্রবিরোধী কোনো কাজে লিপ্ত হলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির পাসপোর্ট বাতিলের প্রস্তাব এসেছে এই বৈঠকে।

মন্ত্রী বলেন, ‘বিদেশে থেকে অনেক লোক মিথ্যাচার করছে। কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে বলতে পারে, কিন্তু রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে বলা রাষ্ট্রদ্রোহিতা। ব্যক্তির বিরুদ্ধে বলতেই পারে। আরেকটা হচ্ছে রাষ্ট্রও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। রাষ্ট্রবিরোধী যেসব কাজ বিদেশে বসে যারা করছে, তাদের যাতে পাসপোর্ট বাতিল করা হয়, সে জন্য আমরা পরামর্শ দিয়েছি।’

মোজাম্মেল হক বলেন, ‘তাদের তালিকা প্রস্তুত করা হোক, তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে কী কী করছে, রাষ্ট্রবিরোধী কী কাজ করল, সেগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে যদি দেখা যায় তারা সক্রিয়ভাবে ও অব্যাহতভাবে এই কাজ করে যাচ্ছে, তাদের পাসপোর্ট বাতিলের জন্য উদ্যোগ নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

বক্তব্য ও কর্মকাণ্ড দেশবিরোধী হচ্ছে তা কীভাবে নির্ধারণ করা হবে এমন এক প্রশ্নের জবাবে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী বলেন, ‘দেশদ্রোহিতা ও দেশের স্বার্থবিরোধী কোনটা সেটার সংজ্ঞা আইনে আছে। রাষ্ট্রের স্বার্থ পরিপন্থী কোনগুলো, সংবিধান ও সিআরপিসিতে যা আছে সেটা মেনেই সেটা করা হবে। নতুনভাবে কোনো কিছু সংজ্ঞায়িত করা হবে না।’