ভালুকায় ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ ৬০ বছরের বৃদ্ধের বিরুদ্ধে

সারুয়ার হাসান, ভালুকা প্রতিনিধি: ময়মনসিংহের ভালুকায় ৫ম শ্রেণী পড়ুয়া ৭ বছরের এক শিশুকে প্রতিবেশী ৬০ বছরের বৃদ্ধ কাজিমউদ্দিন ওরফে কাছু কর্তৃক ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। ঘনাটি ঘটেছে বৃহস্পাতিবার দুপুরে উপজেলার ডাকাতিয়া ইউনিয়নের সোনাখালী গ্রামে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঘটনার সময় পাশ্ববর্তী বাড়ীর এক মেয়ে ঘটনাটি দেখে ফেললে ধর্ষক পালিয়ে যায়। পরবর্তীর্তে ওই শিশুটি তার দাদীর কাছে ঘটনাটি খুলে বললে আশপাশের বাড়ীর লোকজন টের পায়। এ ঘটনায় ওই শিশুর মা গামের্ন্টস কর্মী রেহানা আক্তার বাদী হয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানান তার পরিবারের লোকজন।

জানা যায়, শিশুটির বাবা বেশ বয়েকবছর যাবত সৌদি আরব প্রবাসী। তার মা স্থানীয় একটি গার্মেন্টস চাকুরী করে। শিশুটি তার দাদীর কাছে থাকে এবং স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় লেখাপড়া করে। ঘটনার দিন দুপুরের দিকে তাদের প্রতিবেশী মৃত শহর আলীর ছেলে ৬০ বছরের বৃদ্ধ কাজিমউদ্দিন ওরফে কাছু তার ঘরে ডেকে নিয়ে শিশুটিকে বিবস্ত্র করে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এবং শিশুটির ঘারে ও শরীরে কামর দেয়। ওই সময় পাশ্ববর্তী বাড়ীর ৫ম শ্রেণী পড়–য়া সাদিকা আক্তার ঘরের ভিতর উঁকি দিয়ে মেয়েটির সাথে দস্থাদস্তি করা অবস্থায় দেখতে পায়। পওে মেয়েটির ডাক চিৎকারে ধর্ষক কাজিমউদ্দিন কাছু পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় শিশুটির দাদী নূরজাহান বেগম জানান, ‘আমার নাতি সবকিছু খুলে বলার পর আমি কাছুদের বাড়ীতে যাই। গিয়ে তাদের কাউকে পাইনি। আমি আমার নাতিকে বহু কষ্ট করে আমি মানুষ করতেছি। কাছু একজন লম্পট প্রকৃতির লোক । আমি এ ঘটনার বিচার চাই ।

সোনাখালী ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ ইউসূফ আহম্মেদ জানান, ‘আমি নিজে এসে ঘটনাস্থলে গিয়েছি। তিনি বলেন, আপাতত আপনারা ঘটনাটি পত্রিকায় লেখবেন না। আমি ও মহিলা মেম্বার মিলে এ ঘটনার কঠোর বিচার করবো’।

ভালুকা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মাইনউদ্দিন জানান, ‘আমরা কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ দিলে ঘটনা তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেব’।