মতলবে ইয়াবা বিক্রিতে রাজি না হওয়ায় কিশোরকে মারধর ॥ থানায় অভিযোগ

মতলব প্রতিনিধি: মতলব পৌরসভার নলুয়া গ্রামে ইয়াবা বিক্রিতে রাজি না হওয়ায় জুলহাস বেপারী (১৬) নামের এক কিশোরীকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে ওয়ার্ড আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সিরাজ প্রধানের ছেলে শিব্বীর (২২) এর বিরুদ্ধে। মারধরের শিকার ওই কিশোর বর্তমানে মতলব দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

অভিযোগ ও সরেজমিনে জানা যায়, ওই আ’লীগ নেতার ছেলে শিব্বীর দশম শ্রেণিতে পড়–য়া কিশোর জুলহাস প্রধানকে দিয়ে এলাকায় ইয়াবা বিক্রি করতে চেষ্টা চালায়। কিন্তু এতে জুলহাস রাজি না হওয়ায় গত ২৮ ডিসেম্বর দুপুরে তাকে ডেকে নিয়ে শিব্বীর ও কাউছার মুন্সির ছেলে আলম মুন্সি ওই গ্রামের মৃধা বাড়ির বাগানে মারধর করে। ওই সময় তারা জুলহাসকে মারধর করতে করতে পাশ্ববর্তী আরিফ সরকারের ঝিলের ভিতরে নিয়েও আরেক দফা মারধর করে। মারধরের শিকার হয়ে জুলহাস একপর্যায়ে অজ্ঞান হয়ে পড়লে অভিযুক্তরা তাকে একটি ফার্মেসীতে নিয়ে যায়।

ওই সময় আশপাশের লোকজন দেখে জুলহাসের পরিবারের সদস্যদের খবর দিলে তারা জুলহাসকে উদ্বার করে বাড়িতে নিয়ে যায়। বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার পরে জুলহাসের শারীরিক অবস্থা ধীরে ধীরে খারাপ হতে থাকলে পরিবারের সদস্যরা মতলব দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এসে ভর্তি করান। এদিকে ছেলেকে দিয়ে ইয়াবা বিক্রির চেষ্টা এবং মারধরের অভিযোগ এনে জুলহাসের মা আম্বিয়া বেগম বাদী হয়ে ৩১ ডিসেম্বর মতলব দক্ষিণ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি নামনা প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, শিব্বীর ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা এলাকায় মাদক বিক্রিসহ ইভটিজিং ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। তাদের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযৈাগ থাকাস্বত্বেও পিতা ও চাচাদের রাজনৈতিক প্রভাবে সে ছাড় পেয়ে যায়।