মাইলফলকের ম্যাচে আবারো ইনজুরির কবলে মেসি

0
85

স্পোর্টস ডেস্ক: র্সেলোনার ঐতিহ্যবাহী নেভি ব্লু আর মেরুন রঙয়ের জার্সিটা পরে ২০০৪ সালে ক্যারিয়ার শুরুর পর ১৫টি বছর কাটিয়ে দিয়েছেন লিওনেল মেসি। এরই মধ্যে অনেক ঘাত-প্রতিঘাত পার হয়েছেন। অবশেষে মঙ্গলবার রাতে খেললেন ৪০০তম ম্যাচ।

মাইলফলকের এই ম্যাচে আবারও ইনজুরিতে পড়তে হয়েছে তাকে। তবে জয় অধরা থাকেনি আর। মেসি এবং বার্সাকে জয় উপহার দিলেন গ্রিজম্যান এবং আর্থার। ভিয়ারিয়ালকে ২-১ গোলে হারিয়েছে বার্সা। সে সঙ্গে পয়েন্ট টেবিলে উঠে এলো চার নম্বরে।

লা লিগায় সপ্তাহের শুরুতেই গ্র্যানাডার কাছে পরাজয় বরণ করেছিল বার্সা। তার আগে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রথম ম্যাচে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে আসতে হয়েছিল তাদেরকে। তবে গ্র্যানাডার কাছে হারটাই বলতে গেলে বার্সাকে নিয়ে সবচেয়ে বেশি সমালোচনার জন্ম দেয়।

অবশেষে ভিয়ারিয়লের বিপক্ষে ঘরের মাঠে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে জয় পেলো বার্সা। ন্যু ক্যাম্পে এদিন দু’দলের তিনটি গোলই হলো প্রথমার্ধে। ফরাসি তারকা আন্তোনিও গ্রিজম্যান ৬ মিনিটেই গোলের সূচনা করে দেন। এরপর ১৫ মিনিটে দ্বিতীয় গোল করেন আর্থার মেলো।

২-০ গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর প্রথমার্ধের একেবারে শেষ মুহূর্তে এসে ব্যবধান কমায় ভিয়ারিয়াল। ৪৪ মিনিটে ভিয়ারিয়ালের হয়ে গোল করেন শান্তি ক্যাজোয়া।

মেসির ৪০০তম মাইলফলকের ম্যাচের পাশাপাশি মঙ্গলবার ছিল বার্সার ঘরের মাঠ ন্যু ক্যাম্পের ৬২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। ১৯৫৭ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর স্টেডিয়ামটি যাত্রা শুরু হয়েছিল। দুর্দান্ত এক জয় দিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখলো বার্সা।

পায়ের ইনজুরির কারণে মৌসুমের প্রথম অংশে খেলতেই পারেননি মেসি। অবশেষে ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষেই প্রথম ম্যাচের একেবারে শুরু থেকে মাঠে ছিলেন তিনি। তাকে পেয়ে যেন উজ্জীবিত ছিল পুরো বার্সেলোনাই। যে কারণে গোল পেতেও সময় লাগেনি কাতালান ক্লাবটির। ম্যাচের ৬ মিনিটের মধ্যেই মেসির কর্নার থেকে কড়া মার্কিংয়ের বেড়াজাল ভেঙে হেডে গোল করেন গ্রিজম্যান।

দ্বিতীয় গোলটির জন্যও বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি বার্সাকে। ১৫ মিনিটে জার্সিও বুসকেটসের পা থেকে বল পেয়ে যান বার্সার ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার আর্থার। প্রায় ২৫ গজ দূর থেকে ডান পায়ের জোরালো শটে গোল করেন তিনি।

তবে ম্যাচের ২৫ মিনিটে বার্সা কোচ ও সমর্থকদের চিন্তার কারণ হয়ে ওঠে মেসির চোট। সাইডলাইনে কিছু সময় উরুতে চিকিৎসা নিয়ে আবার মাঠে ফেরেন তিনি। দ্বিতীয়ার্ধে মেসিকে নিয়ে অবশ্য আর কোনো ঝুঁকি নেননি বার্সা কোচ ভালভার্দে। দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই মেসির পরিবর্তে মাঠে নামান ইনজুরি থেকে ফেরা উসমান ডেম্বেলেকে।

যদিও বিরতির ঠিক আগেই ব্যবধান কমায় ভিয়ারিয়াল। পেনাল্টি বক্সের বাইরে থেকে বাঁ-পায়ের বুলেট গতির শটে লক্ষ্য ভেদ করেন শান্তি ক্যাজোয়া। দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য কোনও দলই গোলের মুখ খুলতে পারেনি। ফলে ২-১ ম্যাচ জিতে লা-লিগায় চার নম্বরে উঠে আসে বার্সেলোনা।

চলতি মৌসুমে লা লিগায় এটি বার্সার তৃতীয় জয়। তিনটিই ঘরের মাঠে। ৬ ম্যাচে অর্জন ১০ পয়েন্ট। ৬ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে গ্র্যানাডা। ৫ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে যথাক্রমে অ্যাটলেটিকো বিলবাও এবং রিয়াল মাদ্রিদ।