মুফতি মিজানুর রহমান নিখোঁজের ১৪ দিন পরেও সন্ধান মেলেনি, প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: চট্রগ্রামের হাটহাজারী থেকে নিখোঁজ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উদীয়মান ইসলামী বক্তা মাওঃ মিজানুর রহমান কাশেমীকে ফিরে পেতে সংবাদ সম্মেলন করেছে তার পরিবার। সোমবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তার ভাই এস,এস, এম সায়েম। লিখিত বক্তব্যে তিনি জানান, পহেলা সেপ্টেম্বর তার কর্মস্থল হাটহাজারী চারিয়া কালা জামে মসজিদ থেকে চট্রগ্রাম হয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছিলেন। পথিমধ্যে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা তার পথরোধ করে তাকে বিভিন্নভাবে প্রশ্ন করতে থাকে।

বিষয়টি তিনি টেলিফোনে তার বন্ধু শওকতকে জানান। বন্ধু শওকত বিষয়টি ওই মাওলানার স্ত্রীকে অবহিত করেন। সাথে সাথে তার স্ত্রী তার সাথে মোবাইলে যোগযোগ করতে চাইলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। এর পর তার সন্ধান চেয়ে ২ সেপ্টেম্বর হাটহাজারী থানায় একটি জিডি করা হয়। মোবাইল ট্রেকিংয়ে তার অবস্থান সিলেটের জকিগঞ্জ এর রতনগঞ্জ এলাকা সনাক্ত হয়। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ওই এলাকায় তল্লাশী চালালেও তার সন্ধান মেলেনি। এর পর অজ্ঞাত এক ব্যক্তি অপহৃতের মোবাইল দিয়ে ফোন করে পরিবারের কাছে ৪ লাখ টাকা দাবী করে।

বিষয়টি র‌্যাব-১৪ কে লিখিত ভাবে অবহিত করা হয়। সাংবাদিক সম্মেলনে নিখোঁজ ছেলেকে ফেরত পেতে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন বৃদ্ধ পিতা আব্দুল ওয়াহাব। শেষ বিদায়কালে ছেলেকে পাশে পাবার আকাঙ্খা ব্যক্ত করে তিনি বলেন, এ বয়সে আমার চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই, আমি চাই মৃত্যুর পর আমার নিখোঁজ সন্তান আমার দাফন কাফনে উপস্থিত থাকবে। এ বিষয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন। সংবাদ সম্মেলনে মাওলানা ইদ্রিস, মুফতী এনাম, রফিকুল ইসলাম রতন ছাড়াও তার স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন।