রাজশাহীর তানোরে পুলিশের পৃথক ৩টি অভিযানে নারী মাদক ব্যাবসায়ীসহ আটক ৩

রুহুল আমীন খন্দকার, ব্যুরো প্রধান: রাজশাহীর তানোরে পৃথক ৩টি অভিযানে ওয়ারেন্ট ভুক্ত ২ আসামী ও ১ নারী মাদক ব্যাবসায়ীসহ ৩জনকে আটক করেছে থানা পুলিশ। বুধবার ২০শে নভেম্বর ২০১৯ইং তানোর থানার এএসআই মোঃ রকিবুল হাসান, এএসআই মোঃ শাহাদত হোসেন, সঙ্গীয় ফোর্সসহ রাত্রী কালীন অভিযানে ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামি যথাক্রমে, ১। শ্রী গোপাল চন্দ্র দাস, পিতা- শ্রী সুরেন চন্দ্র দাস, গ্রাম- মোহর ও ২। মোঃ বরকত আলী, পিতা- মোঃ তাইনুছ আলী , গ্রাম- বৌদ্যপুর, উভয়ের থানা- তানোর, জেলা- রাজশাহীকে গভীর রাতে সঠিক তথ্যের ভিত্তিতে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন।

অপরদিকে, একই দিন রাত পৌনে ১১টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তানোর থানার এসআই মোঃ হামিদুল ইসলামের নেতৃত্বে সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্সসহ নিপা মুর্মূ (৪৫), পিতা-লক্ষীরাম মুর্মূ, মাতা-বিউটি সরেন, গ্রাম- মোহর (মিশনপাড়া), থানা- তানোর, জেলা- রাজশাহীকে তার নিজ বসত বাড়ি থেকে ৭ (সাত) লিটার দেশীয় তৈরী চোলাইমদসহ আটক করতে সক্ষম হন। উদ্ধারকৃত ৭ লিটার চোলাই মদের আনুমানিক মূল্য প্রায় ৩,০০০/- (তিন হাজার) টাকা। আসামি নিপা মুর্মূকে অবৈধ ভাবে বিক্রয়ের উদ্দ্যেশে দেশীয় তৈরী চোলাইমদ নিজ দখলে রাখার অপরাধে আটক করে তানোর থানায় মামলা রজু করা হয়। থানার মামলা নং- ২২ ধারা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইন ২০১৮ এর ৩৬(১) সারণি ২৪(ক)।

এ বিষয়ে তানোর থানার দ্বায়ীত্বে থাকা অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) ওসি রাকিবুল হাসান বলেন, তানোর থানার অভিযানে বুধবার (২০শে নভেম্বর) ২ ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামি ও ১ মাদক ব্যাবসায়ীকে সঙ্গীও পুলিশ ফোর্সসহ আটক করে থানার অফিসার এসআই মোঃ হামিদুল ইসলাম, এএসআই মোঃ রকিবুল হাসান ও এএসআই মোঃ শাহাদত হোসেন।

আটক কৃত ৩ আসামীকে বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে পুলিশ হেফাজতে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, দেশ ও জাতির কল্যাণার্থে সর্ব প্রকার বে-আইনী কর্মকাণ্ডকে রুখে দেবার জন্য আমাদের পুলিশের অভিযান চলমা রয়েছে। পাশাপাশি গোপনে ও প্রকাশ্যে আমাদের থানা পুলিশের পক্ষ থেকে গোয়েন্দা নজরদারি অব্যহত আছে এবং থাকবে, কোন অপরাধীকেই আমরা ছাড় দেবনা? হোকনা সে যতই ক্ষমতাধর বা শক্তিশালী।