রায়পুরে আমন চাষে নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা ছড়িয়েছে

রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলায় চলতি মৌসুমে রোপা আমন চাষের নির্ধারিত লক্ষ্য মাত্রা ছাড়িয়ে গেছে। দিগন্ত জোড়া সবুজ মাঠে কৃষক স্বপ্ন বুনছে। মাঠের পর মাঠ সবুজের সমারোহে ভরে গেছে। এখন কার্তিক মাস চলছে। আর কার্তিকেই আমন ধানের ধোর ও শীষ বেড় হয়। যতই দিন যাচ্ছে ধানের রূপ তত বদলাচ্ছে।

উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ও কৃষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে এবার বর্ষার শুরুতেই আষাঢ় মাস থেকে শ্রাবন মাসে পর্যাপ্ত বৃষ্টি হওয়াতে একটু আগে ভাগেই আমন ধানের চারা রোপন শুরু করেছিলেন কৃষকরা।

গত বারের চেয়ে তুলনা মূলক বৃষ্টিপাত বেশি হওয়ায় ও আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় রোপা আমন ধান চাষে কৃষকরা ভালো ফলন পাবার আশা করছেন। উপজেলার উত্তর চরবংশী ইউনিয়নের চরকাছিয়া গ্রামের কৃষক মিজান বেপারী, সিডু সরদার জানান চলতি মৌসুমে তিনি ১-একর ও ৫ ঘন্টা জমিতে বিভিন্ন জাতের ধান চাষ করেছেন। পর্যাপ্ত বৃষ্টির পানি পাওয়ায় চাষাবাদে কোন অসুবিধা হয় নাই। ফলনও বেশ ভালো হবে বলে তিনি আশা করছেন।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে রায়পুর উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে মোট ১০৭২৫ হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধান চাষের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল। অর্জিত হয়েছে ৯৭১৪ হেক্টর। যা একি সময়ে গত বছর ছিল ১১৪৮৫ হেক্টর জমিতে। আর অর্জিত হয়েছিল ১০৮৯০ হেক্টর।

উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ হোসেন শহিদ সোহরাওয়ার্দী বলেন, গত সপ্তাহে বৃষ্টি ও দমকা হাওয়ার কারণে ১০ থেকে ১ হেক্টর জমির ধান সামান্য ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

এছাড়া এবার কৃষকরা তাদের চাহিদা মত বিভিন্ন কৃষি উপকরণ পাওয়ায় নির্বিঘ্নে রোপা আমন ধান চাষ করতে পেরেছে। যদি শেষ পর্যন্ত আবহাওয়া অনুকুলে থাকে তাহলে ফলনও বেশ ভালো হবে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে রোপা আমন ধান উৎপাদনের নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করছে উপজেলা কৃষি বিভাগ।