শিবগঞ্জে মানবতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে করোনায় আক্রান্ত রোগির পাশে দাড়ালেন সৈয়দ নুরুল ইসলাম এসপি

রুহুল আমীন খন্দকার, বিশেষ প্রতিনিধি : ভালবাসা নাকি সর্বজয়ী! সে নাকি কোনও প্রতিকূলতা মানে না! ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতিতেও এর নজির রেখে যাচ্ছেন কিছু মানব প্রেমি মানুষ। তেমনি চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার বিনোদপুরে ভুলকি পাড়ায় করোনা রোগির পাশে গিয়ে মানবতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে দাঁড়িয়েছেন সৈয়দ নুরুল ইসলাম বিপিএম (বার) পিপিএম পুলিশ সুপার কুমিল্লা। করোনায় আক্রান্ত দম্পতিরা হলেন, মো. ইমন আহম্মেদ (আপেল) ও তার স্ত্রী মোসা. শামীমা বেগম। তারা গাজীপুর থেকে নিজেদের গ্রামের বাড়িতে আসলে তাদেরকে বিতারিত করেন এলাকার কিছু সচেতন মানুষ।

তারপর ইমন তার শ্বশুর বাড়ি শ্যামপুরের বাবুপুর গ্রামে একটি পোল্ট্রির খামারে অবস্থান করেন। এটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে। বিষয়টি কুমিল্লা জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপারের দৃষ্টি খোচর হয়। সাথে সাথে প্রতিনিধি পাঠিয়ে করোনা রোগীর দায়িত্ব নিলেন এবং সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত তাদের ওষুধ থেকে শুরু করে যাবতীয় খাবার পৌঁছে দেওয়ার আশ্বাস দেন, কুমিল্লা জেলার ৬০লক্ষ মানুষের আস্থার প্রতীক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সূর্যসন্তান, মানবতার সেবক সৈয়দ নুরুল ইসলামএসপি কুমিল্লা।

এই মানবতা প্রেমি! পর উপকারী এসপি সৈয়দ নুরুল ইসলামের পক্ষ থেকে শিবগঞ্জের শ্যামপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতার মাধ্যমে এই অসহায় করোনায় আক্রান্ত দম্পতিকে দুই মাসের খাবার যথাক্রমে, ৫০ কেজি চাল, মুরগী, মাছ, আপেল, কমলা, লিচু, ডাব, বেদানা, আঙ্গুর, কলা এবং হ্যান্ড স্যানেটারী, মাস্ক, হ্যান্ড গ্লাভস’সহ নগদ অর্থ ও অন্যান্য দ্রব্যসামগ্রী প্রদান করা হয়। সমবার পয়লা জুন ২০২০ ইং সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এসপি এই অসহায় করোনায় আক্রান্ত দম্পতির সার্বিক খোজ খবর নিয়েছেন বলে স্থানীয় সুত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

উল্লেখ্য, ছাত্র জীবন থেকেই দেশ ও জাতির কল্যান মুখি বিভিন্ন কাজের সাথে সম্পৃক্ত থেকে সমাজের বুকে দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছেন এসপি সৈয়দ নুরুল ইসলাম। যার ভালবাসা শুধু মা, মাটি ও মানুষের প্রতি তাইতো নিজের কর্মস্থলের সার্বিক কার্যক্রম সঠিক ভাবে পরিচালনা করার পাশাপাশি জন্মভূমির মানুষের প্রতি ভালবাসায় নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। এর’ই ধারাবাহিকতায় করোনার প্রাদুর্ভাবের প্রথম দিক থেকেই সাধ্যমতো কুমিল্লায় ৬০ লক্ষ মানুষের সেবা প্রদানের সাথে সাথে নিজ জন্মভূমির হাজার হাজার মানুষকে বিভিন্ন ভাবে জনসচেতনতাসহ খাদ্যসামগ্রী, নগদ অর্থ, চিকিৎসা সেবা, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধক সরঞ্জামাদি সরবরাহের মতো নানামুখী সহযোগিতা করে চলেছেন।

এছাড়াও চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলাবাসীর সাথে করোনা যুদ্ধে প্রথম থেকেই মাঠে নেমেছেন সৈয়দ পরিবার। প্রায় দুই’মাস যাবত উপজেলার কর্মহীন হয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর পাশে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী ও ঈদ উপহার নিয়ে দাড়িয়েছেন, সৈয়দ পরিবারের গড়ে তোলা সেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান জিকে ফাউন্ডেশন।