শ্রীমঙ্গলে স্ত্রীকে খুন করার পর স্বামীর আত্মহত্যা

আল ইব্রাহিম: শ্রীমঙ্গল: সংবাদদাতা:  মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে এক চা শ্রমিক দম্পতির মৃত দেহ উদ্ধার করেছে  পুলিশ।  এদের মধ্যে স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যা করা হয়েছে,  এবং স্বামীর লাশ দড়িতে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গেছে। পুলিশের ধারণা স্ত্রীকে হত্যার পর স্বামী নিজেই আত্মহত্যা করেছেন।

শনিনার মধ্যরাতে শ্রীমঙ্গল বৌলাছড়া চা বাগানের শ্রমিক কলোনীতে এ ঘটনাটি ঘটেছে। মৃতরা হলেন স্ত্রী অলকা তন্তবায় (৩৫) ও স্বামী বিপুল তন্তবায় (৪২)।

 মৃত অলকা তন্তবায় বৌলাছড়া চা বাগানের নিবন্ধিত শ্রমিক। স্বামী বিপুল তন্তবায় বাগানে কাজ ছিলো না। মৃত দম্পত্তির শুভা তন্তুবায় (১৪), দেবা তন্তুবায় (৯) ও দেবী তন্তুবায় (৪) নামে তিনটি সন্তান রয়েছে।

 মৃত স্বামী স্ত্রীর বড় মেয়ে শুভা তন্ত্বায় বলেন, রাতে তাদের ঘরে বাবা মা ও তার ৪ বছরের ছােট বোন ঘুমাতে যায়, সে পাশের কক্ষে ঘুমায়। সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে সে তার বাবা মায়ের মৃতদেহ দেখতে পেয়ে চিৎকার করলে আশেপাশের লােকজন এগিয়ে আসে। সে জানায়, বাবা মায়ের মধ্যে ভালাে সম্পর্কই ছিলাে। বাবা মা মারা যাওয়ার পর এখন সে এবং তার বাকি ছােট দুই ভাই বোন মাতৃ পিতৃ হারা হয়ে গেছে।

শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুছ ছালেক বলেন, গতকাল (শনিবার) সন্ধ্যায় খুন হওয়া স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়েছিলাে। এই ঘটনার সুত্র ধরেই রাতে স্বামী তার স্ত্রীকে খুন করে এবং পরে নিজেই গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে। আমরা ঘটনাস্থল থেকে রক্তাক্ত একটি দা উদ্ধার করেছি। আমরা ধারনা করছি এই দা দিয়েই হত্যা করা হয়েছে। নিহত দুইজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের নি মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানাে হয়েছে।