ষড়যন্ত্র করে ইতিহাস বিকৃত করা যায় না বললেন সুজিত রায় নন্দী

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয়কমিটির ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক জননেতা সুজিত রায় নন্দী বলেছেন, ‘ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত করে ইতিহাস কখনো বিকৃত করা যায় না।
ইতিহাস তার আপন গতিতেই চলে’।
বুধবার (২৫ ডিসেম্বর) রাজধানীর ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্সে ‘সামাজিক সংগঠন ‘তর্জনী’র দ্বিতীয় জাতীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ বিষয়ে সুজিত রায় নন্দী বলেন, ‘১৯৭১ সালে ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা দেন। এই ঘোষণা ওয়্যারলেস যোগে জহুর আহমেদ চৌধুরীর কাজে স্বাধীনতার ঘোষণা পাঠান। বঙ্গবন্ধুর প্রেরিত স্বাধীনতা ঘোষণাপত্র চট্টগ্রামের কালুরঘাট বেতার কেন্দ্র থেকে ২৬ মার্চ দুপুরে আওয়ামী লীগ নেতা মরহুম এম.এ হান্নান বঙ্গবন্ধুর পক্ষে স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রটি পাঠ করেন। পরের দিন ২৭ মার্চ মেজর জিয়াও বঙ্গবন্ধুর পক্ষে থেকে স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র পাঠ করেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘এটাই ছিলো স্বাধীনতার ঘোষণার সঠিক ইতিহাস, সত্যি ইতিহাস। কিন্তু বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় এসে সঠিক ইতিহাসকে বিকৃত করে দেশের প্রজন্মকে চরমভাবে বিভ্রান্ত করেছিলো। আজ এই প্রজন্ম স্বাধীনতার সঠিক ইতিহাস জানতে পেরেছে জননেত্রী শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হওয়ার কারণে।’
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের অবিসংবাদিত নেতা জাতির পিতা ও মহান স্বাধীনতার স্থপতি বলেও উল্লেখে করেন আওয়ামী লীগের এ নেতা।


সংগঠনের সভাপতি সিরাজগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. মোঃ আব্দুল আজিজের সভাপতিত্বে সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক পরিচালক ব্রি. জে. আবদুল মজিদ ভূইয়া।
সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ডা. অমল কুমার ঘোষের সঞ্চালনায় সম্মেলনে ডেলিগেটর ও কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।


তর্জনী সংগঠনটির স্লোগান হচ্ছে- ‘মুক্তির ডাকে চিরঞ্জীব, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব’। এর লক্ষ্য অশিক্ষা, দারিদ্র ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে এক অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনীর্মাণ করা