স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ছোট পরিসরে রাজশাহী মহানগরীসহ বিভিন্ন উপজেলায় পতাকা উত্তোলন

0

রুহুল আমীন খন্দকার, বিশেষ প্রতিনিধি : রাজশাহী মহানগরীসহ জেলার বিভিন্ন উপজেলায় এবার ভিন্ন আবহে পালন হচ্ছে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের থাবায় রাজশাহীতে স্বাধীনতা দিবসের সব কর্মসূচি আগেই বাতিল করেছে বিভাগীয় পর্যায় থেকে শুরুকরে জেলার সকল প্রশাসন।

করোনা ভাইরাসের কারণে প্রতি বছরের মতো শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনসহ অন্যান্য কর্মসূচি গুলো পালন করা সম্ভব হয়নি। এতে বিভিন্ন সরকারি, আধাসরকারী, সায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানসহ রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠন গুলো গনজমায়েত হতে পারেনি।

এদিকে, মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) সকালে ছোট পরিসরে পতাকা
উত্তোলন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। রাজশাহী মহানগরীর সিঅ্যান্ডবি মোড়ে অবস্থিত সার্কিট হাউসে
জাতীয় সংগীত বাজানোর মাধ্যমে সকাল ৯টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান
অতিথি হিসেবে পতাকা উত্তোলন করেন রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার মোঃ হুমায়ুন কবীর খোন্দকার।

সেই সময় বিভাগীয় কমিশনারের সাথে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী জেলা প্রশাসক মোঃ
হামিদুল হক, রাজশাহীর পুলিশ সুপার মোঃ শহীদুল্লাহ, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান ও মহানগর
পুলিশের (আরএমপি) উপ-পুলিশ কমিশনার সাজিদ হোসেনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
অপরদিকে, রাজশাহীর তানোরেও করোনা ভাইরাসের আতংক নিয়েই ছোট পরিসরে মহান স্বাধীনতা ও
জাতীয় দিবস উপলক্ষে জাতীয় সংগীত বাজানোর মাধ্যমে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সুশান্ত কুমার মাহাতোর সভাপতিত্বে, অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি
হিসেবে পতাকা উত্তোলন করেন তানোর উপজেলা চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না। বিশেষ
অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাকিবুল হাসান ও গুটি কয়েক
বীর মুক্তিযোদ্ধারা।

অন্যদিকে, রাজশাহী জেলার গোদাগাড়ী উপজেলাতেও করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক নিয়েই ছোট পরিসরে
মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে জাতীয় সংগীত বাজানোর মাধ্যমে জাতীয় পতাকা উত্তোলন
করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল ইসলাম সরকারের সভাপতিত্বে, প্রধান অতিথি হিসেবে
পতাকা উত্তোলন করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম। এ সময় গোদাগাড়ী মডেল
থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খাইরুল ইসলামসহ কয়েক জন বীর মুক্তিযোদ্ধারা উপস্থিত ছিলেন।
এছাড়াও সারা দেশের ন্যায় রাজশাহী জেলার অন্যান্য উপজেলা গুলোতেও মহামারী করোনা ভাইরাস
আতঙ্ক নিয়ে ছোট ছোট পরিসরে পালিত হয়েছে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস।