হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত

 হাজীগঞ্জ ব্যুরোঃ হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন করা হয়েছে। কলেজের অধ্যক্ষ মো. মাসুদ আহাম্মদের সভাপতিত্বে রোববার দিবসটি উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা, দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া ও মোনাজাতে বঙ্গবন্ধুসহ সকল শহীদের আত্মার মাগফেরাত এবং দেশ ও জাতীর মঙ্গল কামনা করা হয়।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যক্ষ মো. মাসুদ আহাম্মদ বলেন, ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যদি দেশে ফিরে না আসতেন, তাহলে বাঙালি জাতি যে স্বাধীনতা লাভ করেছিল তা ব্যর্থ হয়ে যেত। যুদ্ধ বিধস্ত দেশ পূর্ণগঠনে যখন বঙ্গবন্ধু মনোনিবেশ ছিলেন ঠিক তখনি, দেশী-বিদেশী ষড়যন্ত্রে স্বাধীনতা বিরোধীরা ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা করে।

কলেজ ছাত্র-শিক্ষক মিলনাতয়নে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় তিনি আরো বলেন, স্বাধীনতা বিরোধীরা বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ভুলুন্ঠিত করতে চেয়েছিল, কিন্তু তাদের সে-স্বপ্ন পূরণ হয়নি। বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে এবং প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বেই উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশর কাঙ্খিত স্বপ্ন পূরণ হবে। 

এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন, কলেজের উপাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আনোয়ার উল্যা, শিক্ষক প্রতিনিধি প্রভাষক তৌহিদা আক্তার ও প্রভাষক প্রদীপ কুমার দাস, সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ মাকছুদুর রহমান, প্রভাষক মাসুদুর রহমান, মো. কামরুল হাছান, জান্নাতুল ফেরদাউস প্রমুখ। বক্তব্য শেষে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন, সহকারী অধ্যাপক আবু নোমান মো: মফিজুর রহমান।

দোয়া ও মোনাজাতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্টে শাহাদাত বরণকারী সকল শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শিক্ষামন্ত্রী ডা: দিপু মনি, চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ-শাহারাস্তি) নির্বাচনী আসনের সংসদ সদস্য মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম এর সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করা হয়।