৫৩টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ‘স্টুডেন্ট ক্যাবিনেট নির্বাচন’ সম্পন্ন

কুমিল্লা প্রতিনিধি: সারা দেশের ন্যায় একযোগে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে দেবীদ্বার উপজেলার ৫৩টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ‘স্টুডেন্ট ক্যাবিনেট নির্বাচন’ সম্পন্ন হয়েছে। শনিবার সকাল ১০টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত ১১ সদস্য নির্বাচনে ওই ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলার বিদ্যালয়গুলোর মধ্যে প্রার্থী ও ভোটারদের প্রচারনায় সবচেয়ে বেশী উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা যায় ‘দেবীদ্বার মফিজ উদ্দিন আহমেদ পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে’। বিদ্যালয়টিতে প্রায় ১৮শত শিক্ষার্থী থাকলেও ভোটার তালিকাভূক্ত হয়েছেন ১হাজার ৬২০জন। উক্ত বিদ্যালয়ে ৮ পদের বিপরীতে ২৮জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দীতা করেন। তন্মধ্যে নির্ধারিত সময়ে ভোটদানে অংশ নেয় প্রায় ৮শত ভোটার।

প্রচারনার সময় প্রার্থীরা তাদের হাতে লিখা পোষ্টারে বিভিন্ন দাবি দাওয়া উত্থাপনের পাশাপাশি ওই দাবীর বহিঃপ্রকাশও করা হয় চিত্রাংকনের মাধ্যমে, যা ভোটারদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া জাগে। দাবীগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য,- বিদ্যালয়ের শান্তিশৃংখলা ও শিক্ষার পরিবেশ বজায় রাখা।

বিজ্ঞান গবেষণাগার নিয়মিত চালু ও প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশ বরাদ্ধের ব্যবস্থা। বিদ্যালয়ের পরিবেশ, টয়লেট সংস্কার ও প্রয়োজনে বৃদ্ধি করা সহ নিয়মিত পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখা। শিক্ষার্থীদের জ্ঞানার্জনে লাইব্রেরীতে প্রয়োজনীয় বই বৃদ্ধি করা। শ্রেণী কক্ষ বৃদ্ধি করা। দরিদ্র শিক্ষার্থীদের বেতন, পরীক্ষার ফি মওকুফ করা।

শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানমনা ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত করা, বিশেষ করে সঙ্গীত, বিতর্ক, আবৃত্তি, বিভিন্ন বিষয়ে রচনা প্রতিযোগিতা, বিজ্ঞান বিষয়ক বিভিন্ন নতুন কিছুর উদ্ভাবনে প্রতিযোগীতার ব্যবস্থা করা। শিক্ষার্থীদের জন্য ক্যাম্পাসে খাবারের দোকান ও বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা। শিক্ষার্থীদের খেলা-ধূলায় প্রশিক্ষিত করা ও খেলার সামগ্রী সরবরাহ করা। শিক্ষার্থীদের লক্ষ্য নির্ধারণে সহযোগীতা করা।

সকল ধর্মের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ভ্রাতৃপ্রতীম সম্পর্ক তৈরী করা। শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে অভিজ্ঞতা অর্জনে সভা-সেমিনারের আয়োজন করা। বিদ্যালয়ের নিজস্ব ক্যাম্পাসে শহীদ মিনার নির্মাণ করা। বাল্য বিয়ে ও যৌতুক রোধে সচেতনতা সৃষ্টি করা। বিদ্যালয়ের ইভটিজিং রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন। বিদ্যালয়ের অসহায় দরিদ্র শিক্ষার্থী রোগীদের প্রয়োজনীয় সহযোগীতা করা। শিক্ষার্থীদের মধ্যে দূর্নীতি বিরোধী মনোভাব তৈরী করা।

বিদ্যালয়ের নামাজখানার সংস্কার ও বৃদ্ধি করা। বিদ্যালয়ের সুন্দর ও মনোরম পরিবেশ তৈরী করতে “বিভিন্ন ফুলের বাগান” তৈরী করা। বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বনায়ন, পরিবেশ রক্ষা,দূর্যোগ মোবেলা ও স্বাস্থ্য বিষয়ে  সচেতনতামূলক উদ্যোগ নেয়া সহ বিভিন্ন দাবী।

নির্বাচনে বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন,- ষষ্ঠ শ্রেণীর আয়শা রহমান প্রজ্ঞা, প্রাপ্ত ভোট-৩৪১ ও সাবিহা তাবস্সুম প্রাপ্ত ভোট- ৩০১, সপ্তম শ্রেণীর তাছনুবা রহমান অনন্যা প্রাপ্ত ভোট- ৩৫০, অষ্টম শ্রেণীর সায়মা রহমান প্রাপ্ত ভোট- ৩০৯, সানিয়া সরকার প্রাপ্ত ভোট- ২৫৮, নবম শ্রেণীর সাবিকুন নাহার প্রাপ্ত ভোট- ৩৭০, ইসমাত জাহান প্রিতী প্রাপ্ত ভোট- ২৬৯, দশম শ্রেণীর নুশরাত জাহান পুষ্প প্রাপ্ত ভোট- ৩৬৯।

নির্বাচনটি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দ্বারা পরিচালিত হয়, নির্বাচন কমিশনার, প্রিজাইডিং অফিসার, এজেন্ট, নিরাপত্তা কর্মী সহ সকল দায়িত্ব পালন করে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার নাফিসা আজাদ বলেন, আমার দু’জন নির্বাচন কমিশনার রামিসা রহমান ও হুমায়রা আফরিন রিবিকা সহ সকল কর্মকর্তাদের নিয়ে এবং বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সহযোগীতায় সুন্দর একটি ‘ষ্টুডেন্ট ক্যাবিনেট নির্বাচন’ উপহার দিয়েছি। ভোটার ও প্রার্থীদের মধ্যে ছিল ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা, সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন সম্পন্ন করে শিক্ষার্থীদের মধ্যে নির্বাচনী আগ্রহ সৃষ্টিই আমাদের লক্ষ্য ছিল। তবে উৎসাহ যতটা ছিল ভোটদানে ততটা আগ্রহ সৃষ্টি করতে পারিনি। তবুও প্রায় ৫০% শিক্ষার্থী ভোটদানে অংশ নিয়েছেন।