৯ শর্তে মিলেছে অনুমতি, ময়মনসিংহে সমাবেশস্থলে ফখরুল

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি: মাগরিবের নামাজের আগে সমাবেশ শেষ করতে হবে, নগরীতে যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি করা যাবে না সহ ৯ শর্তে ময়মনসিংহে বিভাগীয় সমাবেশ করার অনুমতি পেয়েছে বিএনপি।

মাত্র ৩ ঘণ্টা আগে বৃহস্পতিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টার দিকে ময়মনসিংহ নগরীর রেলওয়ে কৃষ্ণচূড়া চত্বরে সমাবেশ করার অনুমতি দেয় জেলা প্রশাসন। পরে পূর্ব নির্ধারিত সময় থেকে এক ঘণ্টা পিছিয়ে বিকেল ৩টায় সমাবেশ শুরু হয়।

ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দ ওয়াহিদ জানান, আজ বেলা ১১টার দিকে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের জুডিশিয়াল মুন্সীখানার সহকারী কমিশনার তাসনিম আক্তার স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে ৯টি শর্তে সমাবেশের অনুমতি দেয়া হয়।

ওই শর্তগুলো হলো- সমাবেশে নির্দিষ্ট স্থানের বাইরে মাইক ব্যবহার করা যাবে না, চলাচলে যানবাহনে বিঘ্ন সৃষ্টি করা যাবে না, মাগরিবের নামাজের পূর্বে সমাবেশ সমাপ্ত করতে হবে, সমাবেশস্থলে কোনো ধরনের লাঠি এবং ব্যাগ বহন করা যাবে না, আশপাশ এলাকা থেকে মিছিল সহকারে সমাবেশে প্রবেশ করা যাবে না, সমাবেশ শেষে যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি করা যাবে না এবং দ্রুত সমাবেশস্থল ত্যাগ করতে হবে।

দেখা গেছে, সমাবেশে যোগ দিতে প্রশাসনের আরোপিত বেশ কয়েকটি শর্ত ভঙ্গ করেই মিছিল-শোডাউন করে সমাবেশে আসছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। যদিও নগরীর পয়েন্টে পয়েন্টে মোতায়েন থাকা পুলিশ সদস্যরা তাদের শান্তিপূর্ণভাবে সমাবেশস্থলে যেতে অনুরোধ জানাচ্ছে।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আয়োজিত এ বিভাগীয় সমাবেশের প্রধান অতিথি দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বিকেল ৩টা ১০ মিনিটে সমাবেশের মঞ্চে উঠেছেন তিনি।

সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, নজরুল ইসলাম খানসহ কেন্দ্রীয় ও অঙ্গ সংগঠনের নেতারা বক্তব্য রাখবেন। ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক শফিকুল ইসলাম এ সমাবেশের সভাপতিত্ব করছেন